শুক্রবার, ২৪ মে, ২০১৯

হার্ভার্ড ’ল স্কুলের দরজায় পবিত্র কুরআনের উদ্ধৃতি

পবিত্র কুরআন হল ইনসাফের দলিল। কুরআনের ভিতরে যা কিছু উল্লেখিত রয়েছে– সেগুলো ইনসাফের প্রতীক। এই স্বীকৃতি দিয়েছে আমেরিকার হার্ভার্ড ’ল স্কুল। বিশ্ববন্দিত এই উচ্চশিক্ষা প্রতিষ্ঠানের লাইব্রেরি রুমের মূল প্রবেশদ্বারে পবিত্র কুরআন থেকে একটি উদ্ধৃতি তুলে ধরা হয়েছে। সুবিচারের উদাহরণ হিসেবে ইস্পাতের সাইনবোর্ডে খোদাই করে লিপিবদ্ধ হয়েছে– সূরা নিসা-র ১৩৫ আয়াত। কর্তৃপক্ষের দাবি– বিশ্বের ইতিহাসে ন্যায়বিচারের ব্যাপারে এর থেকে উৎকৃষ্ট নমুনা আর কিছু হতে পারে না।
কুরআনের ৪র্থ সূরা নিসা-র এই অংশে বলা হয়েছে– ‘হে বিশ্বাসীগণ! তোমরা ন্যায়বিচারের প্রতি দৃঢ় প্রতিষ্ঠিত থাকবে। তোমরা আল্লাহর উদ্দেশ্যে সাক্ষ্য দেবে– যদিও তা তোমাদের নিজেদের কিংবা পিতা-মাতা ও আত্মীয়স্বজনের বিরুদ্ধেও হয়। সে বিত্তবানই হোক– অথবা বিত্তহীনই হোক– আল্লাহ্ উভয়েরই যোগ্যতর অভিভাবক। সুতরাং ন্যায়বিচার করতে কামনার অনুগামী হয়ো না। যদি তোমরা ঘুরিয়ে কথা বল অথবা পাশ কেটে চলে যাও– তবে জেনে রাখ– তোমরা যা কিছুই কর আল্লাহ তার খবর রাখেন।’ 
তবে সংবাদটি যেভাবে বিভিন্ন পশ্চিমা মিডিয়ায় উঠে এসেছে– তাতে বলা হয়েছে– ‘কুরআনকে ইনসাফের প্রতীক হিসেবে স্বীকৃতি দিল হার্ভার্ড ল স্কুল।’ এই শিরোনামের সঙ্গে দ্বিমত পোষণ করে কেউ কেউ বলছেন– পবিত্র কুরআন প্রায় দেড় হাজার বছর আগে পৃথিবীতে অবতীর্ণ হয়েছে। কুরআন তার নিজ গুণেই বিশ্বজনীন। পৃথিবীতে এই একটি মাত্র গ্রন্থ– যার কোনও সংশোধন– সংযোজন– বিয়োজন হয়নি– হবেও না। কুরআন হল যৌক্তিক এবং বিজ্ঞানময়। কুরআন আর পাঁচটা ধর্মগ্রন্থের মতো তথাকথিত অর্থে নেহাৎ একটি ধর্মগ্রন্থ নয়। এটি হল বিশ্বমানবতার মুক্তিসনদ ও চলার পথের দিশারী। তাই কুরআনকে কারও কাছ থেকে স্বীকৃতি নেওয়ার প্রয়োজন নেই। কুরআনকে খোদ আল্লাহ বিশ্বজনীন স্বীকৃতি দিয়েছেন।

তবে ১৮১৭ সালে প্রতিষ্ঠিত পশ্চিমা বিশ্বের অন্যতম ঐতিহ্যবাহী হার্ভার্ড ল স্কুলের মধ্যে কুরআন থেকে উদ্ধৃতি দিয়ে সাইনবোর্ড লাগানোয় বিষয়টি ভিন্ন মাত্রা পেয়েছে।  বহু জ্ঞানীগুণি মানুষ এখান থেকে পড়াশোনা করেছেন। তাছাড়া আইন বিষয়ে এতবড় লাইব্রেরি বিশ্বে আর কোনও দেশে নেই। সেই ঐতিহ্যবাহী লাইব্রেরির মূল ফটকে কুরআনের এই উদ্ধৃতি টাঙানো হয়েছে। কর্তৃপক্ষের বক্তব্য হল– আইন-আদালত হল ন্যায়বিচারের পীঠস্থান। আর এখানে আইনের পাঠদান হয়। তাই এই জায়গার সঙ্গে সাযুজ্যপূর্ণ কুরআনের উদ্ধৃতি তুলে ধরা হয়েছে। তবে কুরআনের আয়াত ছাড়াও সেখানে সেইন্ট অগাস্টাইন এবং ম্যাগনা কার্টার উদ্ধৃতিও রয়েছে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only