রবিবার, ২৬ মে, ২০১৯

শেষ দফার ভোটে বাংলায় শূন্য বিজেপি, নেপথ্যে কি বিদ্যাসাগর?

দক্ষিণবঙ্গের যে আসনগুলিকে বিজেপি পাখির চোখ করেছিল, সেগুলির অন্যতম হল দমদম। গেরুয়া শিবির আশা করেছিল, প্রবল মোদী হাওয়ায় ভর করে দুই দশক পর ফের দমদমে ফুটবে পদ্মফুল।শেষ পর্যন্ত অবশ্য দমদমে জিততে পারেননি বিজেপি প্রার্থী শমীক ভট্টাচার্য। প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বিতার পর তৃণমূল প্রার্থী সৌগত রায়ের কাছে তিনি হেরে গিয়েছেন ৫২ হাজার ভোটে।শমীক অবশ্য একা নন। শেষ দফার ভোটে গত ১৯ মে পশ্চিমবঙ্গে যে ৯টি আসনে নির্বাচন হয়েছিল, তার একটিতেও জিততে পারেনি বিজেপি। দমদম ছাড়া বাকি ৮টি কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থীদের জয়ের ব্যবধান ১ লক্ষ থেকে ৩ লক্ষের বেশি। অথচ, তার আগের ৬টি দফা মিলিয়ে যে ৩৩টি আসনে নির্বাচন হয়েছিল, তার অর্ধেকেরও বেশি আসন জিতেছে গেরুয়া শিবির। মোট ১৮টি।

কেন শেষ দফায় এমন বিপর্যয়? রাজনৈতিক মহলেের একাংশের মত, এর পিছনে রয়েছেন ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর স্বয়ং! সপ্তমদফার নির্বাচনের আগে উত্তর কলকাতার বিজেপি প্রার্থী রাহুল সিনহার সমর্থনে কলকাতায় রোড-শো করেছিলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। সেই শোভাযাত্রা চলাকালীন উত্তর কলকাতার বিদ্যাসাগর কলেজে তাণ্ডব চালানো এবং ঈশ্বরচন্দ্রের মূর্তি ভাঙচুর করার অভিযোগ উঠেছিল কেন্দ্রের শাসকদলের বিরুদ্ধে। নির্বাচনের ফল দেখে বাংলায় জল্পনা শুরু হয়েছে, বিদ্যাসাগর কেবল একজন সমাজ সংস্কারক নন। গত দুই শতাব্দী যাবত তিনি বাঙালীর আবেগের সঙ্গে অঙ্গাঙ্গীভাবে জড়িত। গেরুয়া ব্রিগেডের বিরুদ্ধে তাঁর মূর্তি ভাঙার অভিযোগের ওঠার জন্যই বিজেপি ধাক্কা খেয়েছে সপ্তমদফার নির্বাচনে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only