রবিবার, ২৬ মে, ২০১৯

উপনির্বাচনে হার বিজেপির

লোকসভা ভোটে দেশজুড়ে গেরুয়া ঝড়ের মধ্যেও অশনি সঙ্কেত গোয়ায়। পানাজি বিধানসভা আসনে উপনির্বাচনে কংগ্রেসের কাছে পরাজিত হয়েছে বিজেপি। দীর্ঘ ২৫ বছর আসনটি বিজেপির দখলে ছিল। গোয়ার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী মনোহর পারিক্করের আসন ছিল এটি। তাঁর মৃতু্যর পর আসনটিতে উপনির্বাচন হয়। পারিক্করের মৃতু্যর পর সহানুভূতির হাওয়ায় আসনটি জিততে চেয়েছিল বিজেপি। কিন্তু– তা সম্ভব হয়নি। আসনটিতে জয়লাভ করে কংগ্রেস। স্বাভাবিকভাবে এরপর রাজ্যে ফের উজ্জ্বীবিত হয়ে উঠেছে কংগ্রেসে। এরআগেও তারা একাধিকবার দাবি করেছিল গোয়ায় বিজেপির যে সরকার চলছে তা সংখ্যালঘু হয়ে পড়েছে। এবার বিধানসভা উপনির্বাচনে জেতার পর সেই দাবি আরও জোরালো করতে চলেছে কংগ্রেস। গোয়ার প্রাক্তন উপ-মুখ্যমন্ত্রী তথা এমজিপি বিধায়ক সুনীল ধাবলকর বলেন– রাজ্যে অ-বিজেপি সরকার গঠন করা সম্ভব। ৪০ আসনবিশিষ্ট গোয়া বিধানসভায় এই মুহূর্তে কংগ্রেসের ১৫জন বিধায়ক রয়েছে। বিজেপির বিধায়ক রয়েছেন ১৭জন। এখন কংগ্রেসকে সরকার গড়তে হলে আরও ৪জন বিধায়কের সমর্থন প্রয়োজন। রাজ্যে এমজিপি’র ১জন বিধায়ক ছাড়াও ৩জন নির্দল বিধায়ক রয়েছেন। এখন এই ৪ বিধায়কের সমর্থন পেলে তবেই কংগ্রেস সরকার গড়তে পারবে। পানাজি উপনির্বাচনে কংগ্রেস জয়ী হওয়ার পরই এমজিপি বিধায়ক বলেন– এবার কংগ্রেসের উচিত রাজ্যে অবিজেপি সরকার গঠন করা। তাঁর এই মন্তব্য থেকে স্পষ্ট– এমজিপি ও নির্দল বিধায়কদের কংগ্রেসকে সমর্থন করার সম্ভাবনা প্রবল। এদিকে– দেশজুড়ে এই গেরুয়া সুনামির মধ্যেও গোয়ায় পানাজি উপনির্বাচনে কেন হার হল তা খতিয়ে দেখছে বিজেপি। মনোহর পারিক্করের ছেলে উৎপল পারিক্কর জানিয়েছেন– তাঁরা এই হারের কারণ অনুসন্ধান করে দেখবেন। মানোহরের মৃতু্যর পর এই কেন্দ্রে ১৯ মে বিধানসভা উপনির্বাচন হয়। উল্লেখ্য– গোয়ার চারটি বিধানসভা আসনে উপনির্বাচন হয়েছিল। তারমধ্যে বিজেপি তিনটিতে জয়ী হলেও পানাজির মতো গুরুত্বপূর্ণ আসনটি হাতছাড়া হয় বিজেপির। উল্লেখ্য– এই ৪টি আসনই আগে বিজেপির দখলে ছিল। গোয়ায় ২টি লোকসভা আসনের মধ্যে একটিতে জয়ী হয়েছ বিজেপি– অন্যটিতে জয়ী হয়েছে কংগ্রেস।  

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only