মঙ্গলবার, ১৪ মে, ২০১৯

এলাকা দখলকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষে উত্তাল বীরভূমের কাকড়তলা

প্রতীকি ছবি
 এলাকা দখলকে কেন্দ্র করে ফের দুই দল দুষ্কৃতীর সংঘর্ষে উত্তাল হল এলাকা। ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার বীরভূমের কাকড়তলা থানার বড়রা গ্রামে। ঘটনায় বেশকিছু আগ্নেয়াস্ত্রসহ ১০ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় পুলিশি টহল, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে। যদিও দুই পক্ষ একে অপরের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছে।
      মুহুর্মুহু বোমা পড়ছে তার সঙ্গে গোলাগুলি। এমনই ভাবে কয়েকশো বোমা এবং গুলির শব্দে মঙ্গলবার এর ভোরবেলা শুরু হল বীরভূমের  কাকড়তলা থানার বড়রা গ্রাম। এলাকা কার দখলে থাকবে তার জন্য লড়াই  দুই দলের। একদিকে উজ্জ্বল কাদেরী এবং স্থানীয় তৃণমূল কংগ্রেস পঞ্চায়েত সদস্য শেখ আব্বাস অন্যদিকে শেখ আজফার ওরফে কালো। কালো সেখ বিভিন্ন অপরাধমূলক মামলায় অভিযুক্ত এবং পুলিশের খাতায় সে পলাতক ছিল। এ দিনের ঘটনার পর তাকে ও আরও ৯ জনকে আগ্নেয়াস্ত্রসহ গ্রেফতার করেছে পুলিশ। যদিও শেখ কালো ও তার দুই অনুগামী শেখ জব্বার এবং আরো একজনের বাড়িতে  বোমা মারা হয়েছে বলে অভিযোগ। কালো শেখের পরিবারের দাবি প্রায় ১০০ জন সশস্ত্র দুষ্কৃতী  ৬০০ থেকে ৭০০ বোমা ফাটিয়েছেন তাদের বাড়ির উপর এর সঙ্গে কয়েকশো রাউন্ড গুলিও ছুড়েছে দুষ্কৃতীরা। বাড়ির লোহার দরজা ও জানালা লক্ষ্য করে বোমা গুলি ছোড়া হয়। একটি জানলা ভেঙে বাড়ির ভিতর আগুন লেগে যায়। এছাড়াও বাড়িতেও ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়।
      অপর পক্ষের দাবি, এলাকায় সন্ত্রাস ছড়ানোর লক্ষ্যে ঝাড়খন্ড থেকে দুষ্কৃতী এনেছিল শেখ কালো। এলাকাবাসীরা ক্ষুব্ধ হয়ে কালোর বাড়িতে হামলা করে। ভোরবেলা থেকে বোমাবাজি শুরু হলেও সকাল বেলায় কাঁকরতলা থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছান।  কালো শেখের মা লছমুনা বিবির অভিযোগ, "প্রায় শ'খানেক ছেলে এসে আক্রমণ করে আমাদের বাড়িতে। প্রাণে মেরে ফেলার হুমকি দিতে থাকে। পরপর বোমাবাজি করতে থাকে। নিয়ামুল, আকবর, বিট্টু, জয়নাল, আব্বাস এরা সবাই ছিল ওই দলে। উজ্জলের নেতৃত্বে ওই হামলার ঘটনা ঘটে।"

উজ্জ্বল কাদেরী  বলেন, ভিন রাজ্য থেকে দুষ্কৃতী নিয়ে আসে এবং এলাকায় সন্ত্রাস ছড়ানোর চেষ্টা করে কালো। তার  প্রতি এলাকার জনগণের রোষ থেকেই এমন ঘটনা।  এই ঘটনার সাথে আমরা কোনভাবেই জড়িত নয়।"
বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার আভারু রবীন্দ্রনাথ বলেন, ১০ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তাদের কাছ থেকে আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় পুলিশি টহল আছে। বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only