মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০১৯

নোবেল যোগ্য গবেষণায় সাফল্য আইআইএসসি'তে

বেঙ্গালুরু ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ সায়েন্স এখন বিশ্বের নজরে এসেছে। কারণ বিজ্ঞান গবেষণাতে তারা এক বিশাল সাফল্য পেয়েছে। বিশেষজ্ঞদের মতে এই সাফল্য নোবেল পুরস্কারের যোগ্য। এমন কি হল আইআইএসসি'তে! এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দুই বিজ্ঞানী অংশু পান্ডে ও দেব কুমার থাপা স্বাভাবিক তাপমাত্রায় সুপার কন্ডাকটিভ ব্যবহার করে সাড়া ফেলেছেন।
পরিবাহী তার দিয়ে বিদ্যুৎ বয়ে যাওয়ার সময় বেশ খানিকটা বাধা প্রাপ্ত হয়। একেই বলে রোধ বা রেজিস্ট্যান্স। কিন্তু কোনো বাধা যদি না থাকে তাহলে খুব সহজেই কোনো বিদ্যুৎ অপচয় না হয়ে বয়ে যাবে এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে।
১৯১১ সালে বিজ্ঞানী ক্যামারলিন আবিস্কার করেছিলেন অতিপরিবাহীতা। কিন্তু সেটি কার্যকর করতে গেলে পরিবেশের তাপমাত্রা শূন্য ডিগ্রি সেলসিয়াসের নীচে থামতে হবে। কিন্তু এটা করা সব সময় সম্ভব নয়।  অংশু এবং দেব বিশ্ববিজ্ঞানের কেন্দ্রবিন্দুতে চলে আসেন গত বছর ২৩ জুলাই। গবেষণায় সাফল্য জার্নালে ছাপার আগে যে ইন্টারনেট পোর্টালে বিজ্ঞানীরা এখন তা পোস্ট করেন, সেই এআরএক্সআইভি-তে ওঁদের গবেষণা প্রকাশ করে। পেপারে ওঁরা দাবি করেন, এমন কিছু পদার্থ আইআইএসসি-র ল্যাবরেটরিতে বানানো গিয়েছে, যে সব বিদ্যুৎ পরিবহণ করে স্বাভাবিক উষ্ণতায়। বলা বাহুল্য পেপারটি ছাপা হতেই আন্তর্জাতিক বিজ্ঞানী মহল কৌতূহলী। একেবারে আমাদের চারপাশের উষ্ণতায় অতিপরিবাহিতা!

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only