বুধবার, ৮ মে, ২০১৯

বহুতল ফ্ল্যাটে নাইট গার্ডের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার নিয়ে চাঞ্চল্য এলাকায়

দেবশ্রী মজুমদার, বোলপুর, ০৮ মেঃ নির্ণীয়মান বহুতল ফ্ল্যাটে নাইট গার্ডের ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার নিয়ে চাঞ্চল্য এলাকায় বীরভূমের বোলপুরে।  প্রশাসন ও এলাকাবাসীদের একাংশের প্রাথমিক অনুমান, দীর্ঘদিন আর্থিক অনটনে ভুগছিলেন ওই ব্যক্তি। শেষমেশ আত্মহত্যার পথ বেছেনিলেন বোলপুরে এক নির্ণীয়মান বহুতলের নৈশপ্রহরী। যদিও মৃত্যু নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরী হয়েছে এলাকায়। মৃত ব্যক্তির নাম কাবলু কাহার (৪০)। বাড়ি বোলপুরের ৫নং ওয়ার্ডের সুকান্তপল্লীর আমতলায়। 
এলাকাসূত্রে জানা গেছে, বোলপুরে পূর্ণীদেবী কলেজ লাগোয়া একটি নির্নীয়মান বহুতল ফ্ল্যাটে বছর খানেক ধরে রক্ষীর কাজ করছিলেন কাবলু কাহার। ফ্ল্যাটটি যখন একতলা অবধি উঠেছে সেই সময় থেকেই নজরদারি করার জন্য নিযুক্ত ছিলেন তিনি। নিজের বাড়ি থেকে চলে এসে নজরদারি বাড়াবার জন্য ফ্ল্যাটের পাশেই রাস্তার ধারে একচালা গোডাউন ঘরে পরিবার নিয়ে বসবাস শুরু করেন। ওই গোডাউনে ফ্ল্যাটের মজুত নির্মাণ সামগ্রীর এক পাশে খুব কষ্ট করেই কাবলু কাহার ও তাঁর স্ত্রী ডলি কাহার তাঁদের ছেলেকে নিয়ে বসবাস করতে শুরু করেন। কাবলু কাহারের ছেলে  বোলপুরের শ্রীনন্দা উচ্চবিদ্যালয়ে স্কুলে অষ্টম শ্রেণীতে পড়াশোনা করে। জানা গেছে, বেশ কয়েক দিন আগে ফ্ল্যাট থেকে নির্মান সামগ্রী চুরি যায়।  সেই কারণে স্বামী ও স্ত্রী মিলে সারা রাত তাঁরা ফ্ল্যাট পাহারা দিতেন। মঙ্গলবার রাতেও তাঁরা পাহারা দেন অধিক রাত পর্যন্ত। মঙ্গলবার রাতের শেষের দিকে ছেলে একা শুয়ে থাকায়, কাবলু কাহার তাঁর স্ত্রীকে শুতে পাঠান।   নিজেও পরে শুতে যাবেন বলে স্ত্রীকে জানান তিনি। যদিও, তিনি আর যাননি। এদিকে ডলি দেবী ঘুমিয়ে পড়েন। ভোর পাঁচটা নাগাদ স্বামীর খোঁজ করতে গিয়ে তিনি দেখেন ফ্ল্যাটের দোতলায় গলায় দড়ি নিয়ে ঝুলছে।  ঘটনার পর কাবলু কাহারের মৃত্যু নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে।  প্রতিবেশীদের অনেকেই প্রশ্ন তুলছেন, মৃত ব্যক্তির গলায় দড়িটি জড়ানোর মত থাকায়।পাশাপাশি, মৃত ব্যক্তিটির ঝুলন্ত পা জুতো পড়া অবস্থায় মাটিতে ঠেকে ছিল। যদিও মৃতর স্ত্রী ডলি দেবী জানান, তাঁর পক্ষে বলা সম্ভব নয়, কি করে মৃত্যু হল তাঁর স্বামীর। তিনি জানান তাঁদের স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কোন পারিবারিক অশান্তি ছিল না। বোলপুর পুরসভার ৫ নং ওয়ার্ডের বাসিন্দা জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আমাদের প্রাথমিক অনুমান আভাবের কারনেই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন কাবলু কাহার। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only