শনিবার, ১৮ মে, ২০১৯

ইফতার পার্টিতে আযানের দোয়ার বাংলা অর্থ শোনালেন অধ্যাপক রিপন ভট্টাচার্য

এম এ হাকিম : ‘রাইস’-এর বারাসত শাখায় পাঠরত ছাত্র-ছাত্রীদের উদ্যোগে ইফতার মজলিশ অনুষ্ঠিত হল শুক্রবার সন্ধ্যায়। এদিন আমন্ত্রিত অধ্যাপক-অধ্যাপিকা ও শিক্ষাকর্মীরা আনন্দের সঙ্গে মিষ্টি নিয়ে ইফতারে যোগ দেন। পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগমের তত্বাবধানে রাজ্যের বিভিন্নস্থানের শতাধিক ছাত্র-ছাত্রী বর্তমানে রাইস-এর বারাসত শাখায় আবাসিকভাবে পড়াশোনা করছে। এখানকার ছাত্র মেহেদি সানী ‘পুবের কলম’ প্রতিবেদককে  জানান, ইফতার মজলিশে উপস্থিত হয়ে অ্যাডামস ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের অধ্যাপক রিপন ভট্টাচার্য আযানের দোয়ার বাংলা অর্থ সকলকে শোনান। বাংলাদেশ রেডিওতে দেওয়া আযানের শেষে যে ‘দোয়া’ পাঠ হয় তার বাংলা অর্থ শুনে শুনে মুখস্থ হয়ে গিয়েছে রিপন বাবুর। এভাবে রিপন বাবুর মুখ থেকে আযানের বাংলা অর্থ শুনে সংখ্যালঘু মুসলিম ছাত্র-ছাত্রীরা অভিভূত হয়ে পড়েন।  
অধ্যাপক বাপ্পাদিত্য দাস বলেন, এই প্রথম এমন অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে নতুন এক অভিজ্ঞতা হলো। সুন্দর এক মূহুর্তের সাক্ষী থাকলাম। অনুষ্ঠানে উপস্থিত অধ্যাপক গৌতম ভদ্র, শুভাশীষ দাশ, পার্থ মুখার্জিরা বলেন, আমরা এখানে যোগ দিতে পেরে খুব খুশি। এ এক অনন্য অনুভূতি! এই মুহূর্তগুলো কখনো ভোলা যায় না। এই ধরণের অনুষ্ঠান আমাদের ঐক্যকে আরও সুদৃঢ় করে। অধ্যাপক সুব্রত নন্দী বলেন, অ্যাডামস ইউনিভার্সিটিতে এই  প্রথম বিশেষভাবে ইফতার মজলিসের আয়োজন হলো। উপস্থিত ছিলেন রাইস ইনস্টিটিউশনের বিশেষ দায়িত্বে থাকা অভিরুপা মজুমদার, অভিষেক গৌতম প্রমুখ। সমগ্র অনুষ্ঠানটি ব্যবস্থাপনায় রাইস কর্তৃপক্ষের পাশাপাশি এখানকার হোস্টেল সুপার রঞ্জন চৌধুরী ও মিঠু কাঞ্জিলাল চৌধুরী ছাত্র-ছাত্রীদের সঙ্গে বিশেষ ভাবে সহযোগিতা করেন।

উল্লেখ্য ‘রাইস’-এর বারাসাত শাখায় পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু  উন্নয়ন বিত্ত নিগমের তত্বাবধানে চাকরির পরীক্ষায় সফল হওয়ার জন্য ১৬১ জন সংখ্যালঘু ছেলেমেয়ে আবাসিকভাবে প্রশিক্ষণ নিচ্ছেন। এদিন ইফতারকে কেন্দ্র করে দেশের উন্নয়ন, সমৃদ্ধির পাশাপাশি মানুষে মানুষে শান্তি ও সম্প্রীতির জন্য প্রার্থনা করা হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only