শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০১৯

বনগাঁয় ১১ কাউন্সিলর উধাও হয়েছেন দাবি করে পুলিশে অভিযোগ করলেন চেয়ারম্যান

এম এ হাকিম, বনগাঁ : উত্তর ২৪ পরগণার বনগাঁ পৌরসভার ১১ জন কাউন্সিলর উধাও হয়েছেন দাবি করে পুলিশে অভিযোগ করলেন বনগাঁ পৌরসভার চেয়ারম্যান ও তৃণমূল নেতা শঙ্কর আঢ্য। উন্নয়নের কাজকর্ম ব্যাহত হচ্ছে অভিযোগ করে বৃহস্পতিবার বনগাঁ থানায় দলীয় ১১ জন কাউন্সিলারের নামের তালিকা দিয়ে তাঁরা যাতে অফিসে  উপস্থিত হন সেজন্য চিঠি দিয়েছেন। সম্প্রতি হিমাদ্রি মণ্ডল, সোমাঞ্জনা মুখার্জি (মুন্সী), দিলীপ মজুমদার, কার্তিক মণ্ডল, দিপ্তী সরকার, শম্পা মোহন্ত, অভিজিৎ কাপুড়িয়া, মনোতোষ  নাথ, শুভেন্দু মিস্ত্রি, গীতা দাস ও সুমতি পোদ্দার নামে ১১ জন তৃণমূল কাউন্সিলর চেয়ারম্যান শঙ্কর আঢ্যের বিরুদ্ধে মহকুমা শাসকের দফতরে অনাস্থা প্রস্তাব জমা দিয়েছেন। তারপর থেকে বনগাঁর রাজনৈতিক অঙ্গনে তীব্র আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।
এক সংবাদ সম্মেলনে বনগাঁ পৌরসভার চেয়ারম্যান শঙ্কর আঢ্য বলেন, আমাদের পৌরসভার ১১ জন কাউন্সিলরকে কয়েকদিন ধরে পাওয়া যাচ্ছে না। সাধারণ মানুষ আমাদের কাছে আসছে এবং তাদের (কাউন্সিলরদের) পরিসেবা  চাচ্ছে সেই এলাকার সাধারণ নাগরিক। বনগাঁ পৌরসভায় যিনি যে দফতরের দায়িত্বে আছেন তাদের সেই পরিসেবা যাতে ব্যাহত না হয় তারা নিজ বাড়িতে ও পৌরসভায় নিজ নিজ কাজ করুন। তারপরে যে আসবে, আসবে। যে না আসবে, আসবে না। মানুষকে পরিসেবা দেয়া কাউন্সিলরদের কর্তব্য বলেও চেয়ারম্যান মন্তব্য করেন।  
এদিকে, যাদেরকে উধাও বলে থানায় অভিযোগ করা হয়েছে তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজন শুক্রবার সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভিডিও পোষ্ট করে এনিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। ফেসবুকে কাউন্সিলর সোমাঞ্জনা মুখার্জির শেয়ার করা ভিডিও চিত্রে কাউউন্সিলর হিমাদ্রি মণ্ডল বলেন, কেন কি জন্য আমাদের বিরুদ্ধে মিসিং ডায়েরি করা হল ঠিক বুঝলাম না। এটাও ঠিক যে, মিসিং ডায়েরি করার প্রয়োজন হলে পরিবারের লোকজন করতেন। কিন্তু আমাদের পরিবারের লোকজনের সঙ্গে আমরা সব সময় মিট করছি। বনগাঁ থেকে কলকাতায় যাতায়াত করছি। আর যে অনাস্থা আনা হয়েছে সেই অনাস্থার জন্য আমরা দলীয় নেতাদের কাছে দরবার করছি। তাহলে কেন কি বিষয়ে এই মিসিং ডায়েরি করা হল তা বুঝলাম না। ওই ভিডিও চিত্রে অন্য কাউন্সিলররাও উধাও ডায়েরির বিরুদ্ধে মুখ খুলে প্রতিবাদ জানিয়েছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only