শনিবার, ২৯ জুন, ২০১৯

বিজেপির মুখে তৃণমূল পরিচালিত জেলা পরিষদের কাজের দরাজ সার্টিফিকেট

দেবশ্রী মজুমদার, বীরভূম, ২৮ জুন:-  বিজেপির নেতাকর্মীরা তৃণমূল পরিচালিত জেলা পরিষদের অধীন রাস্তার কাজ দেখে সন্তুষ্ট হয়ে জেলা পরিষদের কর্মাধ্যক্ষের সাথে তথ্য বিবরণীর সামনে সেলফি তোলার জন্য আবদার করছেন! এই রাজনৈতিক সৌজন্য প্রদর্শনের এ দৃশ্য গোটা রাজ্যে প্রায় বিরল। সেই সেলফির ছবি এখন সোশ্যাল মিডিয়ায়। বিজেপির ব্লক সভাপতির দায়িত্বে থাকা ওই নেতা ওই স্থানে না গেলেও, সংবাদ মাধ্যমের কাছে নিজের মুখে স্বীকার করেছেন ভালো কাজের প্রশংসা করার মধ্যে কোন অন্যায় নেই। এর মধ্যে কোন অন্যায় দেখছেন না নলহাটির ধ্রুব সাহা। তিনি বলেন, ভালো কাজ হলে, তার প্রশংসা করার মধ্যে কোন অন্যায় নেই। বিজেপি দল হিংসায় বিশ্বাসী নয়। তবে, বিজেপির জেলা সভাপতি রামকৃষ্ণ রায় প্রতিক্রিয়ায় জানান, তাই নাকি!  বিষয়টি দেখছি। দলের জেলা সম্পাদক অতনু চট্টোপাধ্যায় বলেন, যে বিষয়টি জানি না। সেটা বলব না। যিনি বলেছেন, বক্তব্যের দায়িত্ব তাঁর।  এ ব্যাপারে জেলাপরিষদের শিক্ষা কর্মাধ্যক্ষ আবু জাহের রাণা বলেন, এর মধ্যে অন্যায় কিছু দেখছি না। লোহাপুর পোস্ট অফিস থেকে চারুবালা গার্লস হাইস্কুল পর্যন্ত আনুমানিক ৫০০ মিটার রাস্তার কাজ শেষের দিকে। জেলাপরিষদের তত্বাবধানে এই কাজ চলছে। আজ জনা ছয়েক বিজেপি নেতা এসে কাজ দেখতে চাই। শুরুতে আমি ভাবি বোধ হয় কোন বিশৃঙ্খলা করতে এসেছে।  আমি বলি, দেখুন। রাস্তার কাজ সবার দেখার অধিকার আছে। তাঁরা সব কিছু দেখে বলেন কাজ খুব ভালো হয়েছে। সিডিউল মেনেই হয়েছে। তারপর তাঁরা আমার সাথে একটা সেলফি তুলতে চান। আমি বাধা দিইনি।   

 ব্যাপারে জেলাপরিষদের সভাধিপতি বিকাশ রায় চৌধুরী বলেন, বাস্তবে আমাদের কাজ নিয়ে কারো কিছু বলার কোন জায়গা রাখি না। আর সেজন্য এই বিজেপি সরকার এই বীরভূম জেলা পরিষদকে প্রথম স্থান দিয়েছে গোটা দেশের মধ্যে। লখন গিয়ে সেই পুরস্কার নিয়ে এসেছি। তবে উনারা কাজ ভালো বলেছেন, ঠিক আছে। তবে এর মধ্যে দুরভিসন্ধি থাকতে পারে। কারণ তাঁরা সেলফি তুলেছেন। তারপর সেই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায়। তবে বিজেপির নলহাটি-২ ব্লক সভাপতি ঝোলক মণ্ডলকে বাবার ফোন করেও কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only