বুধবার, ২৬ জুন, ২০১৯

চিনের সঙ্গে বাণিজ্যযুদ্ধে আমেরিকায় বাড়ছে বাইবেলের দাম!


চিনের ওপর বানিজ্যযুদ্ধ করতে গিয়ে খ্রিষ্টানধর্মীয় নেতাদের অসন্তোষের মুখে পড়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। মার্কিন খ্রিষ্টান ধর্মগুরুদের আশঙ্কা এই শুল্ক আরোপে তাদের ধর্মগ্রন্থ বাইবেলের দাম বাড়িয়ে দেবে।

গত বছর চিন থেকে আমদানিকৃত স্টিল ও অ্যালুমিনিয়ামের ওপর চড়া শুল্ক আরোপ করেন ট্রাম্প। সেই থেকে দুদেশের মধ্যে বাণিজ্য যুদ্ধ তীব্র আকার ধারণ করে। চিনকে কোণঠাসা করতে আবার ২৫০ বিলিয়ান ডলারের চিনা পণ্যের ওপর ২৫ শতাংশ শুল্ক আরোপ করেন তিনি। বদলা নিতে চিনও আমেরিকার আমদানিকৃত পণ্যের ওপর বাড়তি শুল্ক আরোপ করে।

কিন্তু দুই থেকে এই বাণিজ্য যুদ্ধের কারণে বিপাকে পড়েছেন খ্রিষ্টান ধর্মবলম্বী ও প্রকাশকরা। কারণ চিন থেকেই বেশির ভাগ বাইবেল আমেরিকায় আমদানি হয়। ইভঅ্যাঞ্জেলিক্যাল ক্রিশ্চিয়ান পাবলিশার অ্যাসোসিয়েশন এর প্রেসিডেন্ট স্ট্যান জান্টজ বলেন, প্রতি বছর আমেরিকায় ২ কোটি বাইবেল চিন থেকে আমদানি করা হয়। তাই বাইবেলের ওপর যদি ২৫ শতাংশ শুল্ক আরোপ করা হয় তাহলে প্রকাশকরা খতির মুখে পড়বেন। তাতে বাইবেলের ঘাটতিও দেখা যাবে।

ক্যালিফোর্নিয়ার কংগ্রেস সদস্য জোশ হার্ডার বলেন, কাগজের মান ও প্রযুক্তিগত কারণে শুধু আমেরিকা নয় বিশ্বের অন্যান্য দেশেও বাইবেল চিন থেকে আমদানি করা হয়। সম্প্রতি প্রিন্টিং-এর সরঞ্জাম সহ অন্যান্য আমদানিকৃত চিনা পণ্যের ওপর ৩০০ বিলিয়ন ডলারের শুল্ক আরোপ করায় চার্চ, স্কুল, অলাভজন সংস্থা, প্রভৃতির ওপর নেতিবাচক প্রভাব পরছে। বাইবেলকে এই অতিরিক্ত করের আওতা থেকে দূরে রাখাই উচিত হবে। তিনি আরও জানিয়েছেন, এ বিষয়ে প্রেসিডেন্ট নজর কারতে বাইবেল ট্যাক্স শিরোনামে একটি চিঠি তিনি ট্রাম্পকে দিয়েছেন। সেখানে বাইবেল ও বইয়ের ওপর থেকে কর তুলে নেওয়ার জন্য আর্জি জানিয়েছেন তিনি। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only