বুধবার, ১২ জুন, ২০১৯

বসিরহাট জেলা হাসপাতালে চিকিৎসকদের অনন্য নজির, পরিষেবা রোজ দিনের মতো

ইনামুল হক, বসিরহাটঃ বসিরহাটে সরকারি চিকিৎসকদের অনন্য নজির দেখা গেল বুধবার। এদিন বসিরহাট জেলা হাসাপাতালে  চালু হওয়া সব পরিষেবা ছিল সচল। এনআরএস কাণ্ডের জেরে জুনিয়র ডাক্তাররা সিদ্ধান্ত নিয়েছিল প্রতিটি সরকারি হাসপাতালে আউটডোর বন্ধ থাকবে। কিন্তু সকাল থেকে সম্পূর্ণ ভিন্ন চিত্র দেখা গেল বসিরহাট স্বাস্থ্য জেলার এই হাসপাতালে। সকাল থেকে প্রতিদিনের মতো আউটডোর সচল ছিল। ফলে প্রতিদিনের মতো স্বাভাবিক ছবি বসিরহাটে। একদিকে রোগীদের লাইন অন্যদিকে চিকিৎসকরা মুমূর্ষু রোগীদের চিকিৎসা পরিষেবা দিতে ব্যস্ত ডাক্তারবাবু থেকে শুরু করে নার্স ও হাসপাতালের সহকারী কর্মীরা। যেখানে কলকাতা শহর ও শহরতলীর কিছু হাসপাতালে পরিষেবা বন্ধ করেছে আউটডোর বিভাগ। কিন্তু বসিরহাট স্বাস্থ্য জেলা সুপার শ্যামল হালদার জানিয়েছেন, আমরা সকাল থেকে মাল্টি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতাল হিসেবে যা যা পরিষেবা দেওয়া হয় তার সব বিভাগ চালু রাখা হয়েছে। প্রতিদিনকার মত চিকিৎসক থেকে সমস্ত কর্মীরা নির্ধারিত সময সুচি মেনে পরিষেবা দিচ্ছে। তিনি মনে করেন রোগীরা আমাদের কাছে ভগবান।  একদিকে মুমুর্ষ রোগী অন্যদিকে সুন্দরবন লাগোয়া বসিহাট মহাকুমার বিস্তীর্ণ অঞ্চলের অসুস্থ মানুষ এই পরিষেবা পাচ্ছে। তাতে এই ধরনের সিদ্ধান্তকে রীতিমত অভিভূত আপ্লুত বসিরহাটবাসী। কলকাতায় জুনিয়র ডাক্তারদের উপর আক্রমনকে তারা নিঃসন্দেহে প্রতিবাদ জানায়। দোষীদের শাস্তি হোক তারা চায়। পাশাপাশি মানবিক কারণেই নিরপোরাধ রোগীর উপরে এর বদলা নেওয়া যায় না। তাই বসিরহাট জেলা হাসপাতালের এহেন সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছে রোগীর পরিবারের লোকেরা। এদিন মালঞ্চ, হাসনাবাদ, বাদুড়িয়া থেকে এসে চিকিৎসা পরিষেবা নিয়ে যান নানা ধরণের রোগী। ইনডোরে ভর্তি রোগীদের নিয়ে উদ্বেগ থাকলেও চিকিৎসক সহ সরকারি নার্স ও কর্মীদের দ্বায়িত্ব পালনে বাহবা দিচ্ছেন রোগী থেকে রোগীর পরিবারের লোকেরা। চিকিৎসকরা সেবা দিতে যেভাবে মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে আরো একবার আরেকবার দৃষ্টান্ত হয়ে থাকল বসিরহাট স্বাস্থ্য জেলা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only