বুধবার, ১৯ জুন, ২০১৯

অবিকল বিগ-বি, তাজ্জব অমিতাভও

এক ঝলক মানুষটিকে দেখলে আপনি তাঁকে অমিতাভ বচ্চন ভাবতে বাধ্য। চলন-বলন-পোশাক এমনকী চশমাও আপনাকে চোখে সর্ষের ফুল দেখতে বাধ্য করবে বৈকি! নিজের মুখে বললে তবেই বুঝবেন মানুষটি বিগ-বি নন– বরং শশীকান্ত পেডওয়াল।
স্টেজে ওঠে তিনি কখনও বলছেন– ‘নাম হ্যায় শাহেন শা’। আবার কখনও হোস্টিং করছেন ‘কৌন বনেগা করোর পতি’। আর সেই  ভিডিও অভিনেতা শেয়ার করেন সোশ্যাল মিডিয়াতে। অমিতাভ বচ্চনের জনপ্রিয় সেই সব সংলাপ– অবিকল তাঁর মতোই এক ব্যক্তির মুখে শুনে তাজ্জব হয়ে যান অনেকেই। শেয়ার হওয়া ওই ভিডিও– নেটিজেনদের তো বটেই এমনকী দৃষ্টি আকর্ষণ করে অমিতাভের ভক্তদেরও।
কে এই শশীকান্ত পেডওয়াল? পেশায় তিনি একজন প্রফেসর। অমিতাভের এক পরম ভক্তও বটে। কিন্তু অমিতাভের নকল করে মানুষকে তাক লাগিয়ে দেওয়ার চিন্তাটা কীভাবে এল তাঁর মধ্যে? প্রশ্নের উত্তরে শশীকান্ত জানান– কলেজে সব বন্ধুরাই তাঁকে বলতেন– তিনি নাকি অবিকল অমিতাভ বচ্চনের মতো দেখতে। তারপর থেকেই শুরু করে দেন বিগ-বি’র জনপ্রিয় সংলাপ আওড়ানো। কলেজ জীবন থেকেই স্টেজে অমিতাভ বচ্চনের নকল করা শুরু করে দেন তিনি।  তবে শুধু অমিতাভই নয়। তিনি নকল করতে ওস্তাদ আরও বহু অভিনেতাকেই।
অনেক সময়ই– ইচ্ছা থাকলেও সাধ্য থাকেনা অমিতাভ বচ্চনকে অনুষ্ঠানে অতিথি হিসাবে আনার। শশীকান্ত পেডওয়াল অনুষ্ঠানের আয়োজকদের সেই হতাশা দূর করেন অবলীলায়। বিভিন্ন এনজিও এবং ক্যান্সার হাসপাতালেও গিয়েছেন রোগীদের খুশী করতে।
অভিনেতা বলেন– ‘অনেক সময় আমি অনুষ্ঠানের আয়োজকদের বলি রোগীদের আমার আসল পরিচয় দেবেন না। একটা ছোট্ট মিথ্যা কথা– যদি রোগীদের মুখে হাসি ফোটাতে পারে– তাহলে তাতে আমি কিছু খারাপ ভাবব না।’ শুধু ভারতেই নয়। অভিনেতার ডাক আসে বিদেশ থেকেও।
কখনও সাক্ষাৎ হয়েছে অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে? উত্তরে জানান– ‘২০১১-তে তাঁর বাড়ি গিয়েছিলাম। তাঁকে আমার অ্যালবামও দেখিয়েছিলাম। বিগ-বি প্রথমে বিশ্বাসই করেননি– এটা আমার ছবি। তিনি আমার কাজের ভূষসী প্রশংসা করেন।’ যাঁকে ঘিরে শশীকান্তের এতো কর্মকাণ্ড– সেই বিগ-বি’র কাছ থেকে  দরাজ সার্টিফিকেট পেয়ে  খুশিতে আপ্লুত শশীকান্ত পেডওয়াল।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only