বুধবার, ১৯ জুন, ২০১৯

শেরপা ছাড়াই ২ বাঙালি পর্বতারোহীর শৃঙ্গ জয় 

শুভায়ুর রহমানঃ যদি আত্মবিশ্বাস ও মনের জেদ থাকে তবে কোন বাধাই বাধা নয়। এর আগেও একাধিক পর্বত শৃঙ্গ অভিযানে গিয়েছেন। ১০ জুন আবার পর্বত শৃঙ্গ অভিযানে ইতিহাস গড়লেন নদিয়ার কৌশিক বিশ্বাস ও বর্ধমানের  রাজীব কুমার মন্ডল।

দুই বাঙালি পর্বতারোহী হিমাচলপ্রদেশের ''কাংলা টার্বো ২'' (৬১২০ মিটার) জয় করলেন। তবে এই দুই পর্বতারোহী শেরপা ছাড়াই শৃঙ্গ জয় করলেন বলে জানা গেছে। ১০ জুন দুপুর আড়াইটে নাগাদ শৃঙ্গের চূড়ায় পা রাখেন। নদিয়ার নাজিরপুর উচ্চ বিদ্যাপীঠের শিক্ষক তথা পর্বত আরোহী কৌশিক বিশ্বাস ২০১৫ তে মাউন্ট নুন, ২০১৭ সালে ব্ল্যাক পিক শৃঙ্গ জয় করেন। অন্যদিকে, বর্ধমান এক্সপ্লোরেশন এন্ড নেচার ড্রাইভ সোসাইটির রাজীব কুমার মন্ডল ১৯৯২ সাল থেকে ২৫ টির বেশি অভিযানে সামিল হয়েছেন। তিনি দার্জিলিঙের হিমালয়ান মাউন্টেনিয়ারিং ইনস্টিটিটের এক্স গেস্ট ইনস্ট্রাক্টর। জানা গেছে, রাজীব বাবু ২০০৯-১০ সালে ৩৪২ দিনে ট্রান্স হিমালয় হেঁটে অতিক্রম করেন। ২০১৩ তে মাত্র ৬৪ দিনে বাইকে চেপে ট্রান্স হিমালয় অতিক্রম, তাঁর অভিযানগুলোর মধ্যে অন্যতম। গত ২১ মে হাওড়া হাওড়া স্টেশন থেকে রাজীব কুমার মন্ডল, কৌশিক বিশ্বাস, সুদীপা দাস, রোহিত মজুমদার, সৌমিতা সাহা, সুব্রত ব্রম্ভ, সৃজিত সাহা, গণেশ সাহা ও রবি কুমার দুবে মোট ৯ জনের একটি পর্বতারোহী দল রওনা দেন। ২৩ তারিখ তাঁরা চন্ডীগড়ে পৌঁছান। ২৪ মে হিমাচল প্রদেশের সিকিমে যান। তখন তুষারপাত শুরু হয়। ২৯ মে ভোরে হেঁটে যাত্রা শুরু করেন। প্রথম বেস ক্যাম্প থেকে ২ জুন দ্বিতীয় বেস ক্যাম্পে যান। এর পর আবহাওয়া খারাপ হয়। ৮ তারিখ পাঁচ জন সামিট ক্যাম্পের দিকে এগোতে থাকেন। চারজন বেস ক্যাম্পে অপেক্ষায় ছিলেন। ৯ তারিখ তিন জন সামিট ক্যাম্পেই থাকেন। সব শেষে একজনকে সামিট ক্যাম্পে রেখে ১০ জুন ভোরে রাজীব বাবু ও কৌশিক বাবু অভিযানে বের হন। ওই দিন দুপুরে শৃঙ্গের শিখরে পৌঁচ্ছায় বলে কৌশিক বাবু জানান। তিনি বলেন খুবই ভাল অনুভূতি। কোনো শেরপা ছাড়াই এই শৃঙ্গ জয় হয়েছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only