বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন, ২০১৯

যে শহরে মুসলিমদের বাড়ি ভাড়া দেওয়া নিষিদ্ধ



লেবাননের রাজধানী বেরুতের কাছেই রয়েছে হাদাত নামে এক শহর। কয়েক দিন আগে খ্রিষ্টান সংখ্যালগরিষ্ট এই শহরে মুসলিমদের বিরুদ্ধে অদ্ভুত একটি নিষেধাজ্ঞা চাপানো হয়েছে।

নয়া আইন অনুযায়ী, হাদাত শহরে খ্রিষ্টান অধিবাসিদের কাছ থেকে কোনও মুসলিম বাড়ি ও সম্পত্তি ভাড়া বা কিনতে পারবে না। কিন্তু মুসলিমদের ক্ষেত্রে এরকম কোনও বাধ্যবাধকতা রাখা হয়নি। তারা চাইলে যে কোনও ধর্মের ব্যক্তিদের কাছে তাদের সম্পত্তি ভাড়া দিতে বা বিক্রি করতে পারবে।
লেবানেনর সমাজ ব্যবস্থা সাম্প্রদায়িকতার বিষ ছড়িয়ে রয়েছে। যার জন্য ১৫ বছর ধরে চলা গৃহযুদ্ধে প্রায় ১ লক্ষের বেশি মানুষ প্রাণ হারিয়ে ছিলেন।

হাদাত, বেরুতের দাহিয়্যাহ নামক শিয়া মুসলিম অধ্যুশিত এলাকার পাশে অবস্থিত। সেখানে হিজবুল্লাহর উপস্থিত। যা হাদাতের খ্রিষ্টানদের মনে নিরাপত্তাহীনতার সৃষ্টি করে। প্রায় তিরিশ বছর আগে হাদাত ছিল সম্পূর্ন খ্রিষ্টান অধ্যুষিত শহর। ১৯৯০ এর পর এখানে মুসমিলদের সংখ্যা বৃদ্ধি পায়। বর্তমানে ৬০ থেকে ৬৫ শতাংশ মুসলিম বসবাস করেন। হেদাদ লেবাননের একমাত্র শহর যেখানে মুসলিমদের বিরুদ্ধে এমন প্রকাশ্যে ঘোষণা রয়েছে।

লেবাননের ১৮টি ধর্মীয় গোষ্ঠীর মধ্যে সম্পর্ক খুব একটা ভালো নয়।আগে খ্রিষ্টান সেখানে সংখ্যাগুরু হলেও নিয়ন্ত্রিত জন্মহার ও দেশত্যাগের ফলে এই সংখ্যা কমে এক তৃতীয়াংশে নেমে এসছে। অন্যদিকে বাকি জনসংখ্যার অর্ধেক শিয়া ও সুন্নি। ১৯৪৩ সালে ফ্রান্সের কাছ থেকে স্বাধীনতা পাওয়ার পর ক্ষমতা ভাগ করে নেয়ার নিয়ম অনুসারে দেশটির রাষ্ট্রপতি হন একজন ম্যারোনাইট খ্রিষ্টান, প্রধানমন্ত্রী ছিলেন সুন্নি মুসলমান এবং সংসদের স্পিকার হন শিয়া।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only