শনিবার, ২২ জুন, ২০১৯

দেড়শো মানুষের মৃত্যু হবে ভেবে ইরানে হামলা করেননি ট্রাম্প!



চিরাচরিত স্বভাবে হুমকি দিলেও কোনও ট্রাম্প জামানায় দেশের সঙ্গে যুদ্ধেলিপ্ত হয়নি আমেরিকা। বানিজ্যযুদ্ধ, অবরোধ, নিষেদ্ধাজ্ঞা জারি রেখেই তিনি আমেরিকা ভীতি ছড়িয়ে রেখেছেন বিশ্বের অন্যান্য দেশের ওপর। তবে পরমাণু চুক্তি নিয়ে ইরানে সঙ্গে আমেরিকা যুদ্ধে লিপ্ত হওয়ার প্রবল সম্ভবণা তৈরি হয়েছে। কিন্তু মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলছেন, ইরানের হামলা চালালে দেড়শো মানুষের মৃত্যুর আশঙ্কা ছিল বলে তিনি সামরিক অভিযানের সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসেছিলেন।
গত বৃহস্পতিবার নিজেদের আকাশসীমায় একটি মার্কিন ড্রোনকে ভূপাতিত করে ছিলেন ইরানে সেনাবাহিনী। এবিষয়ে জানা গিয়েছে, মার্কিন ড্রোন ভূপাতিত করার ঘটনায় ইরানে সামরিক অভিযান পরিচালনার প্রস্তাব অনুমোদনের শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্ত থেকে সরে এসছিলেন ট্রাম্প। শুক্রবার তার এই সিদ্ধান্তের কথা জানাতে গিয়ে ট্রাম্প বলেন, তাকে না কি জানানো হয়েছিল ইরানে হামলা চালানো হলে প্রায় দেড়শো মানুষের মৃত্যু হতে পারে আশঙ্কা করা হয়েছিল। ট্রাম্প বলেন, আমি এটা চাইনি। আমার মনে হয়নি এটা যৌক্তিক হবে।সে কারণ আমি অভিযানের অনুমোদন দিইনি।
তবে আমেরিকা যে যুদ্ধের জন্য ইরানকে উস্কানি দিচ্ছে তার সরাসরি প্রমাণ মিলেছে। কারণ স্যাটেলাইট ছবি থেকে জানা গিয়েছে, ওমান উপসাগরে দুটি তেলের ট্যাঙ্কারকে নষ্ট করে দেওয়ার জন্যই এই  বিস্ফোরণ ঘটনা হয়ে ছিল। ঘটনাটি নিয়ে আমেরিকা-ইরান সম্পর্ক চরমে উঠে ছিল। উত্তেজনা মেটাতে যখন মধ্যস্থতাকারী দেশ জাপানের প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে ইরান সফর করছেন, তখনই এই ঘটনাটি ঘটে। আমেরিকা সম্পূর্ণ দায় ইরানের ওপর চাপায়। কিন্তু একটি তেলের ট্যাঙ্কারের মালিক সাফ জানিয়ে ছিলেন, সেখানে ইরানে কোনও হাত নেই। ইরানও বলেছিল, যে আমেরিকা তেলের ট্যাঙ্কারটি নষ্ট করে সব দায় ইরানে ওপর চাপতে চায়।আর এই সমস্ত কিছু প্রমাণ সাটেলাইট ছবিটি দিচ্ছে বলে দাবি করা হচ্ছে।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only