বুধবার, ২৬ জুন, ২০১৯

মুসলিমরা বসবাস করলেও এই শহরে নেই কোনও মসজিদ !



ইথিওপিয়ার শহর আকসুমে প্রায় ৭৩ হাজার মানুষ বাস করে। শহরবাসীদের ১০ শতাংশ মুসলিম। কিন্তু এখানে কোনও স্থানী মসজিদ নেই।তাই সেখানে মসজিদ গড়তে প্রচার চালাচ্ছেন একদল মুসলিম।
তবে সেখানে খ্রিষ্টানরা সংখ্যাগরিষ্ট থাকায় বিষয়টি কঠিন হয়ে পড়ছে। কারণ অর্থডক্স খ্রিষ্টানরা চান না যে সেখানে কোনও মসজিদ থাকুক। খ্রিষ্টানদের সিনিয়র ধর্মীয় নেতা গডেফা মেরহা বলেন, আকসুম তাদের কাছে মক্কা। তাদের বিশ্বাস ইসলামের পবিত্র স্থানগুলিতে যেমন গির্জা নিষিদ্ধ, তেমনি আকসুমেও কোনও মসজিদ থাকতে পারে না।তাই জীবদ্দশায় তারা অনুমোদন দেবেন না।
তবে বৈষম্যমূলক এমন আচরণে একদল মুসলিম 'সেখানে জাস্টিস ফর আকসুম মুসলিম' হিসাবে সেখানে মসজিদ নির্মাণের জন্য ব্যাপক প্রচার চালাচ্ছেন। তাদের দাবি, মসজিদ নির্মাণ ও প্রার্থনার সুযোগ পাওয়ার অধিকার তাদের রয়েছে। 
যদিও শহরের অনেকেই মনে করেন এ বিতর্ক অর্থহীন। কারণ এই শহর অনাদিকাল থেকে ধর্মীয় সহনশীলতার জন্য সুপরিচিত। জানা গিয়েছে, ইসলামের সূচনা হওয়ার সময় অমুসলিম শাসকদের অত্যাচারে মক্কা থেকে প্রথম মুসমিলরা এই শহরে পালিয়ে এসে বসবাস শুরু করে।সেই সময় তৎকালী সেখানকার খ্রিষ্টান শাসক মুসলিমদের স্থায়ীভাবে বসবাস করার অনুমতি দেন। মূলত আরব দুনিয়ার বাইরে এটাই মুসলিমদের প্রথম বসবাসস্থল হয়ে ওঠে। জানা গিয়েছে, এই শহরে জনসংখ্যার ৮৫ ভাগই অর্থোডক্স খ্রিষ্টান। আর ৫ ভাগ খিষ্ট্রান হলেও তারা অন্য ধারার অনুসারী।
আবদু মুহাম্মদ আলি নামে একজন আন্দোলনকারী জানান, তারা কয়েক প্রজন্ম ধরে এই অঞ্চলে বাস করছেন। খ্রিষ্টানদের একটি বাড়ি নামাযের জন্য ব্যবহার করছেন।ওই শহরে প্রায় ১৩টি অস্থায়ী মসজিদ আছে।সেখানে চিকিৎসক আজিজ মুহাম্মদ প্রায় ২০ বছর ধরে আকসুমে বাস করছেন।তিনি বলেন, এখানে আমরা দু'ধর্মের মানুষ মিলে মিশে কাজ করি। খ্রিষ্টানরা বাধা দেয় না। কিন্তু বহু বছর ধরেই আমরা রাস্তায় নামায পড়ছি, আমাদের একটি মসজিদের দরকার রয়েছে।
পঞ্চাশ বছর আগে ইথিওপিয়ার সম্রাট হাইল সেলেসির শাসনকাল থেকে এই মত পার্থক্য দেখা গিয়ে ছিল। সেই সময় রাজ পরিবার ও শহরের তৎকালী প্রধান একটি সমঝোতায় ভুকিরো-মারে শহর থেকে ১৫ কিলোমিটার দূরে একটি মসজিদ নির্মান করেন। রিডিওনাল কাউন্সিল অব মসলিম বলছে, তারা খ্রিষ্ট্রান নেতাদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনায় বসবেন। তাদের আশা আলোচনার মাধ্যমে তারা সমঝোতায় আসতে পারবেন।



একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only