বুধবার, ২৬ জুন, ২০১৯

তীব্র জল সংকটে শিশু শিক্ষা কেন্দ্র! সমাধানের আশ্বাস প্রশাসনের

দেবশ্রী মজুমদার, রামপুরহাট, ২৬ জুন: অসুরক্ষিত শিশু শিক্ষা কেন্দ্র। টিউবওয়েল আছে তবে অকেজো। অভিযোগ, পঞ্চায়েতে জানিয়েও কোন সুরাহা হয়নি।  নেই  কোন শৌচালয়। তার জেরে ভুগতে হয় পড়ুয়াদের। সব থেকে বড় ঝুঁকি পানীয় জল আনতে রাস্তা পেরিয়ে বাড়ি ছুটতে হয় পড়ুয়াদের। অনেক সময় পুকুরের জলে চলছে রান্না। তাই শিশু স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বিগ্ন এলাকাবাসী।  

     বীরভূমের নলহাটি ২ নম্বর ব্লকে শীতলগ্রামের ১৬ নম্বর শিশু শিক্ষা কেন্দ্র। শিক্ষা কেন্দ্রের তিনজন শিক্ষক শিক্ষিকা। স্কুলে বর্তমানে পড়ুয়ার সংখ্যা ৮৭ জন।  এই কেন্দ্রে অনেকদিন ধরে বিভিন্ন সমস্যার কবলে পড়ুয়া থেকে শিক্ষক শিক্ষিকারা। পানীয় জলের ব্যবস্থা বিকল। স্কুলের প্রাচীর নেই। না থাকার মত বাথরুম। নেই শৌচালয় স্কুলের সহ শিক্ষিকা পানসিয়া খাতুন বলেন, “শিক্ষা কেন্দ্রে শৌচালয় নেই। অনেকদিন ধরে টিউবওয়েল খারাপ। শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের চারদিকে প্রাচীর নেই। ভয় তো আছেই। পড়ুয়াদের মত  শিক্ষিকাদেরও মাঠে ঘাটে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে যেতে হয়।  রান্নার জন্য জল আনতে হয় দূর থেকে। অনেক সময় জলের অভাবে পুকুরের জল ব্যবহার করতে হয়। স্কুলের প্রধান শিক্ষক গণেশ চন্দ্র কোনাই বলেন, “টিউবওয়েল বিকল থাকার  কথা পঞ্চায়েতে জানানো হয়েছে। কোন সুরাহা হয় নি।  পড়ুয়াদের পানীয় জলের জন্য ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পার করে বাড়ি যেতে হয়”। এব্যাপারে শীতল গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান শিবানী মাল জানান, আমরা খুব কম দিন হল ক্ষমতায় এসেছি। এই সমস্যা আছে জানি। শিশু শিক্ষা কেন্দ্রের দাবি ন্যহ্য। আমাদের সাধারণ সভা হয়েছে। বৃহস্পতিবার অর্থ সভা হবে। সেখানেই এ ব্যাপারে আলোচনা হবে। আশা করি, সব সমস্যা মিটে যাবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only