বুধবার, ১৯ জুন, ২০১৯

মুরসির মৃত্যুতে আন্তর্জাতিক চাপের মুখে মিশর

আদালতে প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসির মৃত্যুর ঘটনায় আন্তর্জাতিক চাপের মুখে পড়েছে মিশর। মুরসির মৃত্যুর ঘটনায় রাষ্ট্রসংঘের তদন্ত দাবি করেছে মানবাধিকার সংগঠনগুলো। তারা এ ঘটনায় নিরপেক্ষ, স্বাধীন ও স্বচ্ছ তদন্ত চেয়েছে। কাতার গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছে। আর তুরস্ক মুরসির মৃত্যুতে মিশরের শাসকদের দায়ী করে তাঁকে ‘শহীদ’ বলে আখ্যায়িত করেছে।
 মুরসির মৃত্যুর ঘটনার ‘নিরপেক্ষ, বিস্তারিত ও স্বচ্ছ তদন্ত’ চেয়েছে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল।মধ্যপ্রাচ্য ও উত্তর আফ্রিকাবিষয়ক হিউম্যান রাইটস ওয়াচের নির্বাহী পরিচালক সারাহ লিহ হুইটসন এক টুইটে বলেছেন, ‘মুরসির মৃত্যু ভয়ানক, তবে তা অনুমেয় ছিল।’ পরে এক বিবৃতিতে তিনি এ মৃত্যুর জন্য সরকারের উপেক্ষা, দীর্ঘ সময় ধরে একাকী বন্দী রাখা, অপর্যাপ্ত চিকিৎসা এবং পরিবারের লোকজন ও আইনজীবীদের দেখা করতে না দেওয়ার বিষয়গুলো উল্লেখ করেন। সংগঠনটি কারাগারজুড়ে বন্দীদের ব্যাপক হারে উপেক্ষা করাসহ মিশরে মানবাধিকারের গুরুতর লঙ্ঘনের ঘটনায় রাষ্ট্র সংঘের তদন্ত চেয়েছে।
মানবাধিকার সংগঠনগুলো বলছে, প্রায় ছয় বছরের একাকী বন্দিজীবনে মুরসিকে মাত্র তিনবার তাঁর পরিবারের সদস্যরা দেখতে যেতে পেরেছেন। আইনজীবী ও চিকিৎসককেও তাঁর সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হতো না।
পরিবার ও সমর্থকেরা আটকের পর থেকেই মুরসির শারীরিক অবস্থা এবং বেশির ভাগ সময় একাকী বন্দী রাখার বিষয়টি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে আসছিল।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only