বুধবার, ২৬ জুন, ২০১৯

অসমে এনআরসি থেকে ১ লক্ষেরও বেশি মানুষের নাম বাদ, ‘আমসু’র প্রতিক্রিয়া

পুবের কলম ওয়েবডেস্ক :  বিজেপিশাসিত অসমে জাতীয় নাগরিকপঞ্জি (এনআরসি) থেকে ১ লক্ষ ২ হাজার ৪৬২ জনের নাম বাদ দেয়া হয়েছে। এনআরসি কর্তৃপক্ষ আজ (বুধবার) ওই তথ্য প্রকাশ করেছেন।

গতবছর ৩০ জুলাই প্রকাশিত এনআরসি তালিকায় ৪০ লাখের বেশি মানুষের নাম বাদ দেয়া হয়। এ নিয়ে সেসময় দেশে তীব্র প্রতিক্রিয়া ও বিতর্ক দেখা দেয়। তালিকায় তাদের নাম পুনর্বিবেচনার জন্য আবেদন করেন কয়েক লাখ মানুষ।

কেন্দ্রীয় বিজেপি সরকারের অবস্থান হল কোনও অবৈধ নাগরিকের নাম এনআরসি তালিকায় থাকবে না। কিন্তু বিরোধীদের অভিযোগ,  বাংলাদেশি বিতাড়নের নামে বৈধ নাগরিকদের নাম বাদ দেওয়া হচ্ছে। 

এদিকে, এনআরসি তালিকায় একবার নাম নথিভুক্ত হওয়ার পরে কীভাবে ফের তা থেকে নাম বাদ গেল তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এব্যাপারে অল অসম মাইনরিটি স্টুডেন্টস ইউনিয়নের (আমসু) মুখ্য উপদেষ্টা আজিজুর রহমান আজ (বুধবার) ‘পুবের কলম’ প্রতিবেদককে বলেন, ‘এনআরসি কর্তৃপক্ষকে ভারত সরকার এখনও পর্যন্ত ১৫/১৬ শ’ কোটি টাকা দিয়েছে। অসম সরকারের ৫২ হাজার কর্মচারী নিয়োগ করা হয়েছে। ওনারা যখন বলেন ওনাদের ভুলক্রমে কিছু লোকের নাম ঢুকে গেছে তখন এটা হাস্যকর কথা হয়ে যায়। কারণ ওদেরকে এত বিজ্ঞানভিত্তিক উপায় দেয়া হয়েছে, এত শক্তি দেয়া হয়েছে, ব্রেন দেয়া হয়েছে, ৫২ হাজার লোক দেয়া হয়েছে, তোমাদের কেন ভুল হবে? আর ভুল যদি হয় তাহলে গোটা এনআরসি প্রক্রিয়া নিয়ে মানুষের প্রশ্নবোধক চিহ্ন এসে যাবে। সেজন্য আমাদের দাবি, ওনারা যে খামখেয়ালি শুরু করেছেন তা বন্ধ করতে হবে।’ 

আজিজুর রহমান বলেন, ‘যেহেতু দেশের সর্বোচ্চ আদালতের তত্ত্বাবধানে এই কাজ (এনআরসি নবায়ন)চলছে সেজন্য আমরা আশাবাদী যে সুপ্রিম কোর্ট একটা সঠিক সিদ্ধান্ত দেবে যার ফলে অসমের সকলেই উপকৃত হবেন।’

১৯৭১ সালের ২৫ মার্চের আগের বৈধ নথিপত্র আছে এমন সকলের নাম এনআরসিতে নথিভুক্ত হবে তারা ভারতীয় হিসেবে গণ্য হবে এনিয়ে আমরা আশাবাদী বলেও আমসু উপদেষ্টা আজিজুর রহমান বলেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only