রবিবার, ২৩ জুন, ২০১৯

চাঞ্চল্যকর ঘটনা- কেন ১৩ বাংলাদেশিকে গ্রেফতার করতে বাধ্য হল লালগোলা থানার পুলিশ!

আবদুল ওদুদ:- সীমান্ত পেরিয়ে অবৈধ ভাবে বাংলাদেশ থেকে ভারতে প্রবেশ করতে গিয়ে লালগোলা থানার পুলিশের হাতে ধরা পড়ল পাঁচ বাংলাদেশী যুবক। এদের প্রত্যেকের বয়স ১৯ থেকে ৩৫  বছরের মধ্যে। তবে সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর নিশ্ছিদ্র প্রহরা গলে কি উদ্দেশ্যে এই সব যুবক ভারতে প্রবেশ করছিল তা এখনও জানা যায়নি। ধৃতদের শনিবার লালবাগ মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক তাদের ১৪ দিনের জেল হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন। তবে কম বয়সি  যুবকদের এই ভাবে ভারত ভূখণ্ডে অনুপ্রবেশ নিয়ে উৎকণ্ঠা প্রকাশ করেছেন জেলার পুলিশ মহল। এই ব্যাপারে লালবাগ এসডিপিও বরুণ বৈদ্য বলেন,” ধৃতদের কাছ থেকে জামা কাপড় ছাড়াও বেশ কিছু মোবাইল এবং টেলিফোন নম্বর উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধার হওয়া মোবাইল ও টেলিফোন নম্বর থেকে অনুপ্রবেশ কারিদের ভারতে প্রবেশের উদ্দেশ্য জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। তবে একটি দালাল চক্রের মাধ্যমে বাংলাদেশীরা এভাবে সীমান্ত টপকে ভারতে প্রবেশ করছে ।তাদের খোঁজে পুলিশ তল্লাসি শুরু করেছে।”
শুক্রবার সন্ধ্যায় পাঁচ বাংলাদেশী যুবক সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে ঢুকে পড়ে। গোপন সূত্রে লালগোলা থানার পুলিশ খবর পেয়ে থানার নাটাতলা এলাকায় সন্তর্পণে তল্লাশি চালাতে গিয়ে তাদের গ্রেফতার করতে সমর্থ হয়। ধৃতরা হলেন শাজাহান শেখ, আব্দুল হাকিম, তুহিন ইসলাম, অসিম ইসলাম ও তাহাবুল ইসলাম। এদের প্রত্যেকের বাড়ি বাংলাদেশের রাজশাহী জেলার চাপাই নবাব গঞ্জ এলাকায়। ধৃতদের কাছ থেকে পুলিশ বেশ কয়েকটি মোবাইল ও টেলিফোন নম্বর উদ্ধার করেছে। ওই মোবাইল এবং টেলিফোন নম্বরগুলি থেকে অনুপ্রবেশ কারিদের আসল উদ্দেশ্য এবং গন্তব্য গতিবিধির সন্ধ্যান করা শুরু হয়েছে। কিন্তু একসঙ্গে এত যুবক কিভাবে সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর নজর এড়িয়ে ভারতের মূল ভূখণ্ডে ঢুকে পড়তে পারল তা নিয়েই প্রশ্ন উঠেছে পুলিশ মহলেও। শুধু এদিন নয়,চলতি সপ্তাহে এক কিন্তু একসঙ্গে এত যুবক কি ভাবে সীমন্ত রক্ষী বাহিনীর নজর এড়িয়ে ভারতের মূল ভূখণ্ডে ঢুকে পড়তে পারল তা নিয়েই প্রশ্ন উঠেছে পুলিশ মহলেও। শুধু এদিন নয়, চলতি সপ্তাহে একই কায়দায় ভারতে প্রবেশ করে লালগোলা থানার পুলিশের হাতে কম বয়সি আট যুবক ধরা পড়েন। এতেই পুলিশের চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। ওই আট যুবকের মধ্যে সাত জনের বাড়ি ছিল চাপাই নবাবগঞ্জ। একজন ছিল গোদাগাড়ির বাসিন্দা। তবে পুলিশের প্রাথমিক অনুমান স্থানীয় কোন আড়কাঠি বা দালাল মারফৎ বাংলাদেশী অনুপ্রবেশ ঘটছে ভারত ভূখণ্ডে। ওই দালাল চক্রের খোঁজে তৎপর হয়েছে জেলার পুলিশ প্রশাসন। অবশ্য ধৃত আব্দুল হাকিম, অসীম ইসলাম আদালতে যাওয়ার পথে বলেন, “ ভারতকে আমরা নিজের দেশ বলেই মনে করি। কোনও খারাপ উদ্দেশ্য নিয়ে সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে প্রবেশ করেনি। রুজির টানে কাজ পেতেই আমাদের ভারতে আসা।“

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only