রবিবার, ২৩ জুন, ২০১৯

সংখ্যালঘু নিগ্রহ নিয়ে মার্কিন রিপোর্ট উড়িয়ে দিল কেন্দ্র

ভারতে সংখ্যালঘুদের উপর কট্টর হিন্দুত্ববাদীদের হামলা বাড়ছে। এমনই দাবি করে মার্কিন কংগ্রেসে যে রিপোর্ট পেশ করা হয়েছিল তা কার্যত খারিজ করে দিল ভারতের বিদেশ মন্ত্রক। সেইসঙ্গে মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়েছে, ধর্মীয় সহিষ্ণুতা রক্ষায় ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি নেওয়া হয়েছে। সেইসঙ্গে মার্কিন রিপোর্টের সমালোচনা করে বলা হয়েছে– ভারতে নাগরিকদের অবস্থা কেমন তা নিয়ে বিদেশিদের বলার কোনও এক্তিয়ার নেই। উল্লেখ্য– এই মার্কিন রিপোর্টকে ‘পক্ষপাতদুষ্ট’ বলেই আগেই কটাক্ষ করেছিল বিজেপি।
‘রিপোর্ট অন ইন্টারন্যাশনাল রিলিজিয়াস ফ্রিডম ২০১৮’ (আন্তর্জাতিক ধর্মীয় স্বাধীনতা ২০১৮ নিয়ে রিপোর্ট) শীর্ষক মর্কিন রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, ভারতে সংখ্যালঘুদের উপর উগ্র হিন্দুত্ববাদীদের নিগ্রহের ঘটনা বাড়ছে। সেই রিপোর্ট নিয়ে ভারতের বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রাবিশ কুমার বলেন, ভারতের মতো একটি উন্নত গণতন্ত্রের দেশে সংখ্যালঘু-সহ প্রতিটি নাগরিকের মৌলিক অধিকারগুলি সুরক্ষিত রয়েছে। দেশের সংবিধান সেই সুরক্ষা দিয়েছে। সেই অধিকার ক্ষুণ্ণ হচ্ছে কি না তা কোনও বিদেশি বা অন্য কোনও দেশের সরকারের নজর রাখার প্রয়োজন রয়েছে বলে আমরা মনে করি না।
মার্কিন বিদেশ দফতরের রিপোর্টে বলা হয়, ২০১৭ সালেও ভারতে মানুষের ধর্মীয় স্বাধীনতার উপর হস্তক্ষেপের ধারা অব্যাহত ছিল। ভারতের মতো একটি বহু ধর্ম ও বহু সংস্কূতির দেশে এই ধরনের ঘটনা আগের থেকেও বেড়েছে। গৌরীকরণের লক্ষ্যে অ-হিন্দু ও হিন্দু দলিতদের উপর কট্টরপন্থী হিন্দুত্ববাদী গোষ্ঠী ও সংগঠনগুলির অত্যাচার বেড়েছে। হিংসা– হুমকি ও হেনস্থার ঘটনা বেড়েছে। উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ, বিহার, ছত্তিশগড়, গুজরাত, ওড়িশা, কর্নাটক, মহারাষ্ট্র ও রাজস্থান এই ১০টি রাজ্যে সংখ্যালঘুদের ধর্মীয় স্বাধীনতার উপর সবথেকে বেশি আঘাত এসেছে। এই রিপোর্টের প্রসঙ্গে রাবিশ কুমার আরও বলেন, বৃহত্তর গণতন্ত্র ও ধর্মনিরপেক্ষতার আর্দশে বিশ্বাসী ভারত। দেশের বহুত্ববাদ সমাজব্যবস্থা ও সহিষ্ণুতার প্রতি নিষ্ঠার জন্য ভারত গর্বিত। সংখ্যালঘু সহ দেশের প্রতিটি নাগরিকের সব মৌলিক অধিকারকে সুনিশ্চিত করা হয়েছে ভারতের সংবিধানেই। রাবিশ আরও বলেন, ভারতের গণতন্ত্র যে অত্যন্ত প্রাণবন্ত সে কথা গোটা বিশ্ব জানে। সমগ্র বিশ্ব জানে, ভারতের সংবিধান কীভাবে ধর্মীয় স্বাধীনতার অধিকারকে রক্ষা করে। তারা এও জানে, ভারতের গণতান্ত্রিক সরকার আইনের শাসনের মাধ্যমে সেই অধিকারগুলিকে কীভাবে রক্ষা করে ও উৎসাহ দেয়। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only