শুক্রবার, ২১ জুন, ২০১৯

স্মার্ট ফোনের কু-প্রভাব, শিং গজাচ্ছে যুবক-যুবতীদের মাথায়!

পুবের কলম, ২১ জুন: মোবাইল আমাদের জীবনের অঙ্গ হয়ে উঠেছে। বাড়ি, অফিস বা বাইরে, যেকোনও জায়গায় এখন যোগাযোগের সেরা হাতিয়ার হয়ে উঠেছে মোবাইল। কিন্তু এই মোবাইলের কু-প্রভাবে শিং গজাচ্ছে যুবক-যুবতীদের মাথায়, এমনই চাঞ্চল্যকর রিপোর্ট উঠে এসছে সম্প্রতি। চিকিৎসক মহল বলছে, রাস্তা হাঁটতে চলতে প্রায় আমরা বেকায়দায় মোবাইল কানে নিয়ে চলি। সময় বাঁচাতে কাজ করার সঙ্গে ঘাড় বেঁকিয়ে ফোনে চলে অনর্গল কথাবার্তা। কিন্তু এটিতে যে শারীরিক বিপত্তি ঘটে যাচ্ছে, তাতে খেয়াল নেই কারোর। চিকিৎসকরা বলছেন, এই ভাবে মোবাইলে কথা বলার কারণে আমাদের মেরুদণ্ড ও মাথার পিছনের পেশীতে চাপ পড়ে। ফলে হাড় বৃদ্ধি পাচ্ছে। মাথার পিছনে শিং-এর মত একটি হাড় খাঁড়া হয়ে যাচ্ছে অনেকের। এর প্রভাবে মাথা সামনের দিকে ঝুঁকে যায়। এমন সমস্যা নিয়ে প্রায় রোগীরা চিকিৎসকের কাছে আসছেন।
সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার কুইন্সল্যান্ডের সানসাইন কোস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের চিকিৎসকরা বিষয়টি নিয়ে একটি গবেষণা পত্র প্রকাশ করেছে। সেখানে বলা হয়েছে, এই সমস্যায় বেশিরভাগ ভুক্ত ভোগী হচ্ছেন যুবক-যুবতীরা। তাঁরা বলছেন, তরুণ প্রজন্মের মধ্যে এই ধরণের সমস্যা বৃদ্ধি হওয়া ফলে আধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহারে শারীরিক অঙ্গভঙ্গির স্থানান্তরকে ইঙ্গিত করে। তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে বিপরীতভাবে অঙ্গগুলি সঞ্চালিত হচ্ছে। ফলে, শরীরের ওপর কুপ্রভাব পড়ছে। দীর্ঘ সময় ধরে মোবাইলের ক্ষুদ্রতম স্ত্রিনে চোখ রাখার ফলে, ঘাড় থেকে মুখ সামনের দিকে ঝুঁকে পড়ছে।
বলা হচ্ছে, ১৮ থেকে ৩০ বছর বয়সীদের মধ্যেই এই সমস্যাটি বেশি। প্রায় ৪১ শতাংশ তরুণ এমন অদ্ভুত সমস্যায় জর্জরিত। তাই চিকিৎসকদের পরামর্শ, প্রযুক্তি ব্যবহারে সময় নিজেদের শরীরের দিকে নজর দিতে হবে। তাই সময় থাকতে অঙ্গ সঞ্চালনার দিকে বেশি নজর দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন তাঁরা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only