শুক্রবার, ২১ জুন, ২০১৯

বিষাক্ত হাতির মাংস দিয়ে ভূরিভোজ, মৃত ৫৩৭ শকুন!

পুবের কলম, ২১ জুন: জঙ্গলে পরিত্যক্ত হাতি মৃতদেহ দেখে প্রকৃতির স্বাভাবিক নিয়ম অনুযায়ী ভূরিভোজ করতে ছুটে এসেছিল শকূনের দল। কিন্তু তা এই শকুনগুলির পেটে সইল না। মৃত সেই হাতির মাংস খেয়ে বিষক্রিয়ায় মারা গেল ৫৩৭টি শকুন। সম্প্রতি বতসোয়ানায় ঘটনাটি ঘটেছে। আসলে চোরাশিকারিদের গুলির নিশানা হয়ে মৃত্যু হয়ে ছিল হাতিটি। গুলিতে ছিল বিষ। ফলে মৃত হাতিটি সারা শরীরে সেই বিষ ছড়িয়ে পড়ে ছিল। হাতিটির মৃতদেহ জঙ্গলের মধ্যে পড়ে থাকায়, অভুক্ত শকুনের সেটির ওপর নজর পড়ে। কিন্তু অজান্তে বিষাক্ত হাতির মাংস খেয়ে তাদেরও মৃত্যু হয়।
বতসোয়ানা সরকার খবরটি নিশ্চিত করেছে। তারা জানিয়েছে, বতসোয়ানার উত্তরাঞ্চলে দুটি ইগলসহ মোট ৫৩৭টি শকুনের মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছে। তবে এত পরিমাণ শকুনের মৃত্যু হওয়ায় চিন্তা পড়েছে বতসোয়ানার সরকার। চোরাশিকারিরা কিভাবে সেখানে প্রবেশ করল তা নিয়ে তদন্তে নেমেছে সেখানকার বনবিভাগ। তারা জানিয়েছে, মূলত পশুদের ওইভাবে মেরে চোরাশিকারিরা বিশেষ প্রজাতির পাখিদের মারা জন্য ফাঁদ পাতে। সেই ফাঁদেই পা দিয়ে ফেলেছে সেখানকার শকুনেরা। কি বিষ এক্ষেত্রে ব্যবহার করা হয়েছে তা জানতে নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়েছে। সম্প্রতি সমীক্ষা বলছে, ক্রমশ শকুন প্রজাতির পাখিরা বিলুপ্তপ্রায় হয়ে চলেছে। তাতে পরিবেশের বাস্তুতন্ত্র ধাক্কা খাচ্ছে। একসঙ্গে এতগুলি শকুনের মৃত্যু হওয়া প্রজাতিটিকে আরও বেশি বিলুপ্তির দিকে ঠেলে দিল।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only