মঙ্গলবার, ৯ জুলাই, ২০১৯

কর্ণাটক: ৮ বিধায়কের ইস্তফা বৈধ নয়, জানালেন স্পিকার

কর্ণাটক বিধানসভার স্পিকার রমেশ কুমার 
কাটছে না কর্ণাটক জট। মঙ্গলবারও কংগ্রেসের এক বিধায়ক ইস্তফা দেওয়ার পর পরিস্থিতি আরও জটিলতর হচ্ছে। সামাল দিতে গুলাম নবি আজাদকে বেঙ্গালুরুতে পাঠিয়েছেন সনিয়া গান্ধি। কর্ণাটকের পরিস্থিতি নিয়ে এদিন লোকসভা ও রাজ্যসভাও উত্তপ্ত ছিল। বিরোধী দলনেতা অধীর চৌধুরি কর্ণাটকের এই অবস্থার জন্য বিজেপির স্বার্থান্বেষী রাজনীতিকে দায়ী করেছেন। এই ইস্যুতে এদিন লোকসভা থেকে ওয়াকআউট করেন কংগ্রেস সাংসদরা। এদিন একই ইস্যুতে দুপুর দুটোর সময় মুলতুবি হয়ে যায় রাজ্যসভা।
স্পিকার রমেশ কুমার কি করেন সেদিকে তাকিয়ে ছিলেন সবাই। এদিন তিনি জানিয়েছেন কোনও বিক্ষুব্ধ বিধায়কই তাঁর সঙ্গে দেখা করেননি। স্পিকার বলেন, ‘কেউ যদি এ ব্যাপারে দেখা করতে চান– তা হলে আমার দফতরের অনুমতি নিয়েই আসতে হবে তাঁদের।’ তিনি আরও বলেন, কেউ যদি প্রমাণ করতে পারেন চাপের মুখে পড়েই ইস্তফা দিতে হয়েছে– তাহলে সে ইস্তফাপত্র গৃহীত হবে না। স্পিকার আরও বলেন, যে ১৩ জন বিধায়ক ইস্তফা দিয়েছেন তার মধ্যে ৮ জন বিধায়ক আইন মেনে ইস্তফা দেননি। মাত্র ৫ জন নিয়ম মেনে ইস্তফা দিয়েছেন।
 পরিস্থিতি আলোচনা করতে বৈঠকে বসেছিল কংগ্রেসের পরিষদীয় দল। বৈঠক শেষ করে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া বলেন, ‘স্পিকারের কাছে আমরা আর্জি জানিয়েছি ওইসব বিধায়কদের সদস্যপদ খারিজ করতে হবে। শুধু তাই নয়– আগামী ৬ বছর যেন তাঁরা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতে না পারেন সেই ব্যবস্থা করতে হবে।
দিনভর টালমাটালের পরও আশা ছাড়তে চাচ্ছেন না কংগ্রেস-জেডিএস। তাঁরা বারবার দাবি করছেন, সরকার ঠিক আছে। একদিকে তারা আত্মবিশ্বাস দেখানোর চেষ্টা করছে, অন্যদিকে বুঝিয়ে শান্ত করে বিক্ষুব্ধদের ফিরিয়ে আনার চেষ্টা করছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only