বৃহস্পতিবার, ২৫ জুলাই, ২০১৯

লোকসভায় পাস তাৎক্ষণিক তিন তালাক বিল

লোকসভায় পাস হল তাৎক্ষণিক তিন তালাক বিল। ৩০৩ -৮২ ভোটে লোকসভায় পাস হয়ে গেল বিলটি। এনডিএ শরিকদল জেডিইউ এই বিলটিকে সমর্থন করেননি। কংগ্রেস– তৃণমূল– ডিএমকে– বসপা এবং জেডিইউ লোকসভা থেকে ওয়াকআউট করে। বৃহস্পতিবার কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ এই বিলটি আনার সঙ্গে সঙ্গে তুমুল হইচই শুরু হয় লোকসভায়। এই বিলটির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন কংগ্রেস– তৃণমূল– ডিমএকে– সপা’র সাংসদরা।  তাঁরা সমবেত ভাবে দাবি করেন গণপিটুনি নিয়েও আনা হোক আইন। দিনের পর দিন দেশজুড়ে গণপিটুনিতে মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। অথচ গেরুয়া শিবিবের একজন নেতাও গণপিটুনি নিয়ে আইন আনার কথা বলেননি। অথচ মুসলিম মহিলাদের জন্য তাঁরা ‘কান্নায়’ আকুল।
কংগ্রেস সাংসদ মুহাম্মদ জাভেদ বলেন– বিলটি আনার ফলে মুসলিম মহিলাদের জীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠবে। তিনি বলেন– হিন্দু মহিলাদের জন্যেও এমনই কোনও বিল আনা হোক। বহু হিন্দু মহিলা রয়েছেন– যাঁদের স্বামীরা মর্জি মত একদিন তাঁদের বাড়ি থেকে বের করে দেন। এমনও কেউ কেউ রয়েছেন– তাঁরা জানেনই না তাঁদের দোষ কি। খেয়াল খুশি মত তাঁরা স্ত্রীকে ছেড়ে দেন। কেবল হিন্দু হওয়ার কারণে তাঁরা ‘তালাক’ কথাটি উচ্চারণ করেনন না। ফারাক এই টুকুই। এদিন সপা সাংসদ এসটি হাসান বলেন– তিন তালাক দেওয়ার ফলে যদি কাউকে ৩ বছরের জন্য জেলে যেতে হয় তাহলে সে স্ত্রীকে ভরনপোষণ দেবে কীভাবে। বিলের বিরোধিতা করে আরএসপি সাংসদ এন কে রামচন্দ্রন বলেন– হিন্দু ও খ্রিষ্টানদের বিবাহ বিচ্ছেদের ক্ষেত্রে স্বামীকে জেলে দিচ্ছেন না কেন? শুধুমাত্র মুসলিমদের জন্যই বা এই আইন কেন? তিনি বলেন– আসলে এই আইন সম্পুর্ণভাবে মুসলিম বিরোধী।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only