শুক্রবার, ১২ জুলাই, ২০১৯

উত্তর প্রদেশে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি না দেওয়ায় মাদ্রাসা ছাত্রদের মারধর

উত্তর প্রদেশে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি না দেয়ায় দুর্বৃত্তদের মারধরে বেশ কয়েকজন মাদ্রাসা ছাত্র আহত হয়েছে। উত্তর প্রদেশের উন্নাওয়ে গতকাল বৃহস্পতিবারের ওই ঘটনায় চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষ বলছেন, হামলাকারীরা বজরং দলের সঙ্গে যুক্ত। তারা কয়েকজনের সাইকেলও ভেঙে দিয়েছে। এব্যাপারে থানায় এফআইআর দায়ের হয়েছে। পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। ফেসবুক প্রোফাইলের সাহায্যে অভিযুক্তদের খোঁজা শুরু হয়েছে।

মাওলানা নইম মিসবাহী গণমাধ্যমকে জানান, ১২ থেকে ১৪ বছর বয়সী ছাত্ররা ক্রিকেট খেলার সময় কিছু লোক তাদেরকে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দিতে বলে। তারা ‘জয় শ্রীরাম’ না বলায় দুর্বৃত্তরা তাদেরকে মারধর করে এবং তাদের উপরে পাথর নিক্ষেপ করে।

উন্নাও শহরের পুলিশ কর্মকর্তা উমেশ চন্দ্র ত্যাগি বলেন, মাদ্রাসার তিন শিশু দুই গোষ্ঠীর সঙ্গে সংঘর্ষে আহত হয়েছে। শিশুরা গভর্নমেন্ট ইন্টার কলেজ ক্রিকেট ময়দানে ক্রিকেট খেলতে গিয়েছিল। ওই ঘটনার তদন্ত চলছে। এব্যাপারে একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অন্যদেরও গ্রেফতার করা হবে।

গতকাল বিকেলে ১০ থেকে ১৫জন মাদ্রাসার ছাত্র ক্রিকেট খেলতে গিয়েছিল। সেখানে ৩ থেকে ৪জন যুবক তাদেরকে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি দিতে বলে। ওই শিশুরা তা অস্বীকার করার তাদের ব্যাট-স্ট্যাম্প কেড়ে নিয়ে মারধর করা হয়। শিশুরা পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে তাদের উপরে পাথর নিক্ষেপ করায় কয়েকজন ছাত্র আহত হয়। প্রায় প্রত্যেকের জামা ছিড়ে ফেলাসহ একজনের সাইকেল ভেঙে দেয়া হয়েছে।

এব্যাপারে জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের পশ্চিমবঙ্গের সাধারণ সম্পাদক মুফতি আব্দুস সালাম আজ শুক্রবার ‘পুবের কলম’ প্রতিবেদককে বলেন, ‘এধরণের ধর্মীয়  সুড়সুড়ি, ধর্মীয় বিভাজন, ধর্মীয় স্লোগান মানুষের উপরে চাপিয়ে দেওয়া, মানুষকে বিব্রত করা, মানুষের মানহানি, জীবনহানি পর্যন্ত ঘটে যাচ্ছে এসব বিষয়ে আমরা খুব উদ্বিগ্ন! সংখ্যালঘু মানুষ, দুর্বল মানুষ যারাই হোক তাদের নিরাপত্তা দেয়ার দায়িত্ব রাজ্য সরকার ও কেন্দ্রীয় সরকারের। এই মর্মে তাদের ব্যর্থতা, তাদের নীরবতা দেশের জন্য খুব ক্ষতি। এটা খুব বিপদের ইঙ্গিত!’

সম্প্রতি  অসমের বরপেটা জেলায় তিন মুসলিম যুবককে মারধর করে ‘জয় শ্রীরাম’ধ্বনি দিতে বাধ্য করে দুর্বৃত্তরা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only