বুধবার, ২৪ জুলাই, ২০১৯

৪০ সন্ত্রাসী গোষ্ঠী পাকিস্তানে সক্রিয় ছিল: স্বীকারোক্তি ইমরানের


পাকিস্তানের মাটিকে সন্ত্রাসবাদ ছড়ানোর জন্য সন্ত্রাসীগোষ্ঠীগুলি ব্যবহার করত,সে কথা নিজের মুখে স্বীকার করে নিলেন পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। আমেরিকায় তিন দিনের সফরে গিয়ে ইমরান খানের এই নিডর, অকপট উক্তি সারা দুনিয়ায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি করেছে। এত দিনে পাকিস্তানের কোনও প্রধানমন্ত্রী এই বাস্তব নিজের মুখে স্বীকার করলে।

তিন দিনের আমেরিকা সফরের শেষ দিনে মার্কিন কংগ্রেসে পাক প্রধানমন্ত্রী সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বার্তা দিতে গিয়ে একথা বলেন। সেখানে ইমরান বলেন, আমি মনে করি আমেরিকায় ঠিকভাবে পাকিস্তানকে তুলে ধরা হচ্ছে না। গত ১৫ বছর ধরে আফগান সীমান্তে আমরা সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই চালাচ্ছি।ওই সময়ে পাকিস্তানে ৪০টি সন্ত্রাসী গোষ্ঠী সংক্রিয় ছিল। কিন্তু তথ্য বরাবরই পূর্ববর্তী সরকারগুলি গোপন করে গিয়েছে।এই অবস্থায় পরিস্থিতি সরকারের নিয়ন্ত্রণের বাইরে পর্যায়ে গিয়ে পৌঁছে গিয়ে ছিল। কিন্তু ৯/১১-এর হামলায় পাকিস্তানের কোনও যোগ ছিল না। সেই সময় পাকিস্তানই দেশে ভিতরে সন্ত্রাসবাদ থেকে নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই চালাচ্ছিল। কিন্তু তার পরও আমেরিকার সঙ্গে সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে অংশ নিয়েছে পাকিস্তান। 
পাশপাশি তিনি বলেন, আমেরিকার সঙ্গে সন্ত্রাসবাদ বিরোধী লড়াই করতে গিয়ে ৭০ হাজার পাকিস্তানি নিহত হয়েছেন। এই পরিস্থিতিতে পাকিস্তানের অর্থনীতি কোটি কোটি ডলার লোকসান গুনেছে।তালিবানদের আলোচনার টেবিলে আনতে আমরা উচ্চপর্যায়ে চেষ্টা করেছি। আফগানিস্তানে দ্রুত শান্তি ফিরিয়ে নিয়ে আসার বিষয়ে আমেরিকার মত পাকিস্তানেরও তাগিদ রয়েছে।এই সমাধান না হলে পাকিস্তান তার অবস্থান থেকে সর্বচ্চ চেষ্টা করবে। এক্ষেত্রে পুরো দেশ, পাকিস্তান সেনাবাহিনী, নিরাপত্তা-বাহিনীসহ সবাই আমার পাশে আছে। পাকিস্তান, আফগানিস্তান ও তালিবানের সঙ্গে শান্তি সমঝোতায় ইমরান খানের এমন প্রচেষ্টার প্রশংসা করেছেন স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি।এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ও বিদেশমন্ত্রী মাইক পম্পেও পারস্পরিক বিশ্বাসের ভিত্তিতে আমেরিকার পাকিস্তান সম্পর্ক ইতিবাচক দিকে নিয়ে যাওয়া আশ্বাস দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন ইমরান।ট্রাম্প বলেছেন, পাকিস্তানের সঙ্গে আগের চেয়ে এখন অনেক ভালো সম্পর্ক রয়েছে আমেরিকার। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only