মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই, ২০১৯

দেহ পাওয়ার কয়েকঘন্টার মধ্যে খুনের কিনারা, পরকীয়ার জন্য স্বামী খুন




কৌশিক সালুই বীরভূম: নিখোঁজ ব্যক্তির দেহ উদ্ধার হওয়ার কয়েক ঘন্টার মধ্যে খুনির পর্দা ফাঁস করল পুলিশ। এই ঘটনায়ও মনুয়া কান্ডের ছায়া। স্ত্রীর পরকীয়ার জন্য খুন হয়েছে স্বামীকে। ঘটনায় জড়িত স্ত্রী ও তার প্রেমিককে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। ঘটনাটি ঘটেছে, মঙ্গলবার বীরভূমের সদাইপুর থানার করমকাল গ্রামে। ধৃত দুই জনকে বুধবার আদালতে তোলা হবে।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত যুবক হলেন গোপীনাথ পাতর (২৫)। বাড়ি করমকাল গ্রামে। পেশায় তিনি রাধুনী ছিলেন। সোমবার রাত থেকে তাঁর খোঁজ মিল ছিল না। এদিন সকালে গ্রামের কাছে একটি মাঠে তাঁর মৃতদেহ দেখতে পান স্থানীয় বাসিন্দারা। দেহটিকে উলট করে মাটিতে পোঁতা ছিল অর্থাৎ মাথা থেকে কোমর পর্যন্ত মাটির মধ্যে পোঁতা থাকলেও পা দুটি বাইরে বেরিয়েছিল।
পরিবার ও স্থানীয় বাসিন্দারা পুলিশ কুকুর এনে ঘটনার কিনারা করতে দাবি জানান। সকাল থেকে  বেলা বারোটা পর্যন্ত মৃতদেহ পুলিশকে তুলতে দেননি তারা। ইতিমধ্যে পুলিশ ঘটনার তদন্ত শুরু করে। নিহত যুবকের স্ত্রী শ্যামলীকে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করে, স্বামীর বন্ধু বচন ঘোষের কথা জানতে পারে। তারপর বচন কে আটক করে দু'জনকেই জিজ্ঞাসা করতেই খুনের কথা স্বীকার করে নেয় তারা।
গোপীনাথ ও বচন দুই বন্ধু হওয়ার সুবাদে বাড়িতে নিয়মিত যাতায়াত ছিল। সেই সুযোগে অবিবাহিত বচনের সঙ্গে শ্যামলীর অবৈধ সম্পর্ক গড়ে ওঠে বিয়ের পর থেকেই। পথের কাঁটা গোপিকে সরাতে খুনের পরিকল্পনা করে তারা। সেইমতো গত সোমবার রাতে গোপীনাথকে বচন মদ্যপান করানোর জন্য গ্রাম সংলগ্ন ওই মাঠে নিয়ে যায়। মাত্রা অতিরিক্ত মদ্যপান করিয়ে বেহুঁশ করে হাসুয়া দিয়ে বন্ধুর গলার নলি কেটে খুন করে বচন। ওই মাঠেই কোদাল দিয়ে খাল করে শরীরের উপরের অংশ মাটিতে পুঁতে দেয় সে। খুনে ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধার করা হয়েছে।
বীরভূম জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং বলেন, খুনের ঘটনার তদন্ত শুরু করে প্রথমে মৃত যুবকের স্ত্রীকে গ্রেফতার করা হয়। তাকে জিজ্ঞাসা করতেই সে তার প্রেমিকের কথা বলে এবং যোগসাজশ করে খুন করা হয়েছে সে স্বীকার করে পাশাপাশি তার প্রেমিককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only