সোমবার, ২৯ জুলাই, ২০১৯

‘অন্যের সমস্যা হলে রাস্তায় নামায ঠিক নয়’, মন্তব্য করলেন এই ব্যক্তি

অন্য কারও সমস্যা করে রাস্তাজুড়ে নামায পড়া ঠিক নয়, মন্তব্য অল ইন্ডিয়া মুসলিম পার্সোনাল ল’বোর্ডের সদস্য খালিদ রশিদ ফিরাঙ্গি মহলির।
কোনও কোনও স্থানে মুসল্লি বেশি হলে, মসজিদ সংলগ্ন রাস্তায় মানুষ নামাযের জন্য দাঁড়িয়ে যান। বহু বছর ধরে এটাই রেওয়াজ চলে আসছে গোটা দেশজুড়ে। কোনও সময় কেউ আপত্তি তোলেনি। কিন্তু সম্প্রতি এই নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনীতি। রাস্তায় নামায পাঠের প্রতিবাদে পশ্চিমবঙ্গের হাওড়া জেলাতে ‘হনুমান চালিশা’ পাঠ করে বিজেপির যুব মোর্চার সদস্যরা। একইভাবে আলিগড়ে প্রতিবাদ জানায় বেশ কিছু হিন্দু সংগঠন। বাধ্য হয়ে প্রশাসন রাস্তায় যে কোনও ধরনের ধর্মীয় কার্যকলাপে রাশ টানে। এবার রাস্তায় নামায পাঠ নিয়ে মুখ খুললেন  এআইএমপিএলবি-এর সদস্য খালিদ রশিদ ফিরাঙ্গি মহলি। তিনি বলেন, ‘নামায হল আল্লাহ-র কাছে প্রার্থনা। ফলে অন্যকে সমস্যায় ফেলে প্রার্থনা করা সঠিক নয়।’
মহলি-এর মতে, ‘কোথাও কোথাও রাস্তা আটকে নামায পাঠ হয় একমাত্র শুক্রবারই। মসজিদে জায়গার অভাবে, শুক্রবার প্রার্থনার জন্য রাস্তায় নামায পাঠ করতে হয়। কিন্তু এতে যদি কারও কোনও সমস্যা হয়– তাহলে রাস্তায় নামায পাঠ করা ঠিক হবে না। সেক্ষেত্রে নামাজিদের উচিত নির্ধারিত সময়ে কাছাকাছি অন্য কোনও মসজিদে গিয়ে প্রার্থনা করা।'
মহলি-র মন্তব্যে ওঠে আসে জোর করে জয় শ্রীরাম উচ্চারণের প্রসঙ্গও। তিনি বলেন, হিন্দুধর্মে কোথাও জোর জবরদস্তির কোনও জায়গা নেই। ভগবান শ্রীরাম কখনও বলেননি তাঁর ভক্তদের যে– জোর করে অন্যদের দিয়ে এই শ্লোগান উচ্চারণ করাতে। এই প্রসঙ্গে তাঁর আরও সংযোজন– ‘ভগবান রাম একজন পুরুষোত্তম। যে কেউ কীভাবে তাঁর নাম ব্যবহার করে উন্মত্ত আচরণ করতে পারে? যারা শ্রীরাম ধ্বনির নামে  মব লিঞ্চিং করছে– তাদের উচিত ভগবান শ্রীরাম সম্বন্ধে ভালো করে পড়া যাতে তারা রাম সম্পর্কে আরও জানতে পারে।’

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only