মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই, ২০১৯

জয় শ্রী রাম বলতে না চাওয়ায় আক্রান্ত তিন


জয় শ্রী রামবলতে না চাওয়ায় পর পর দুদিনে এক ছাত্র সহ দুজনের উপর হামলা চালাল দুষ্কৃতীরা। দুটি ঘটনায় ঘটেছে পশ্চিম বর্ধমানের আসানসোলে। দু'টি ক্ষেত্রেই আক্রান্ত হয়েছে সংখ্যালঘু সম্প্রাদায়। দুই ঘটনাকে কেন্দ্র আসানসোল জুড়ে আত্মঙ্ক ছড়িয়েছে। দুটি ঘটনায় তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।
পুলিশ সুত্রে জানাগিয়েছে, সোমবার দুপুরে প্রথম ঘটনাটি ঘটে বার্ণপুর এলাকায়। আসানসোলের উত্তর থানার মুতসুদ্দিনমহল্লার বাসিন্দা মহম্মদ ইসরার ওরফে রিজুয়ান পেশায় ফেরিওয়ালা। তিনি ওই দিন দুপুরে বার্নপুরের কালাঝরিয়া থেকে রিভারসাইড রোড ধরে কাপড় জামা বিক্রি করে আসানসোলের দিকে ফিরছিলেন। সেই সময় গুডাগুডা এলাকায় চার জন যুবক বাইকে চড়ে এসে তাঁর পথ আটকায়। তারপর তাঁকে জয় শ্রী রামবলার জন্য চাপ দেয়। রিজুয়ানের অভিযোগ, “সে বলতে না চাওয়ায় তাঁকে মারধর শুরু করে। পকেটে থাকা কয়েক হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়।অভিযোগ, জিনিসপত্র ছিনিয়ে নিয়েছে। মহম্মদ ইসরার নামে ওই ফেরিওয়ালা হীরাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন। তাঁকে আসানসোল জেলা হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়েছে। অভিযুক্তদের খোঁজ চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।
পুলিশ জানায়, গোটা এলাকায় তল্লাশি চালিয়েও অভিযুক্তদের খোঁজ মেলেনি। এই ঘটনার পরে আতঙ্কে রয়েছেন রিজুয়ানের পরিজনেরা। তাঁর  দাদা মহম্মদ শাহবাজ হুসেন জানান, “ভাই বেশ কয়েক বছর ধরে জিনিস ফেরির কাজ করছেন। কিন্তু আগে কখনও এমন সমস্যায় পড়েননি। কাল থেকেই আমরা আতঙ্কে রয়েছি।  
এই রেশ কাটতে না কাটতে মঙ্গলবার দুপুরে জয় শ্রী রাম বলতে না যাওয়া এক স্কুল ছাত্রের উপর হামলা চালায় বলে অভিযোগ উঠেছে। এ দিনের ঘটনাটি ঘটেছে আসানসোলের রেলপাড় এলাকার লোক মসজিদের পাশে। জানাগিয়েছে, ওই ছাত্রের নাম মহম্মদ ফাইজল। রেলপাড় এলাকায় তাঁর বাড়ি। সে পড়াশোনা করে আসানসোল কলেজিয়েট স্কুলে।
পরিবার সূত্রে খবর, এ দিন সে বেলা ২ নাগাদ স্কুল থেকে ছুটি নিয়ে বাড়ি ফির ছিল। সেই সময় তাকে লোকমসজিদের কাছে দুর্গা বিদ্যালয়ের পাশে কয়েকজন যবুক তাকে আটক করে। অভিযোগ, তাঁকে জয় শ্রী রাম বলার জন্য চাপ দেয়। সেই বলতে না চাওয়া তাকে মারতে যায় দুষ্কৃতিরা। সে সময় সে ছুটে পালিয়ে যায়। এই ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এলাকার মানুষ জড়ো হয়ে যায়। খবর পেয়ে পুলিশ পৌঁছাই। পরিস্তিতি নিয়ন্ত্রণ আনে। এই ঘটনায় পুলিশ একজনকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করেছে। 
দু'টি ঘটনা নিয়ে আসানসোলের মেয়র তথা তৃণমূলের জেলা সভাপতি জিতেন্দ্র তিওয়ারির বলেন, “রামের নাম ব্যবহার করে বিজেপির কর্মীর আসানসোলে অশান্তি করার চেষ্টা করছে। রামের নাম করে যাতে  যাতে কেউ অসামাজিক কাজ করতে না পারে, সে জন্য পুলিশকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।বিজেপির জেলা সভাপতি লক্ষ্মণ ঘোড়ুইয়ের অভিযোগ অস্বীকার করেছে। তিনি বলেন, “এমন কোন ঘটনার সঙ্গে বিজেপি যুক্ত নয়। বিজেপির বদনাম করা হচ্ছে। ঘটনায় জড়িতদের ধরার দাবি জানাছি।

  1. ভাষা, বানান, শব্দ, বাক্যগঠন ইত্যাদি এডিট করার মতো লোক নেই? আশ্চর্য!

    উত্তরমুছুন
    উত্তরগুলি
    1. We thank you for taking the time to point it out. We will definitely look into this matter and fix any spelling, grammatical mistakes onward. Thank you again.

      মুছুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only