সোমবার, ২৯ জুলাই, ২০১৯

সৌদি আলেম আল-আওদার বিরুদ্ধে অভিযোগের শুনানি স্থগিত
















 পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক:

সৌদি আরবের প্রখ্যাত আলেম শেখ সালমান আল-আওদার বিরুদ্ধে শুনানি আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত স্থগিত করা হয়েছে
তাকে শিরোশ্ছেদের সাজা দেওয়া হতে পারে এমন উদ্বেগের মধ্যেই রবিবার তার ছেলে আবদুল্লাহ আল-আওদা খবর দিলেন।
এক টুইটে আবদুল্লাহ বলেন, আমার বাবাকে আদালাতি হাজির করা হয়নি। শুনানি স্থগিত করা হয়েছে। আগামী ডিসেম্বরে পরবর্তী শুনানি অনুষ্ঠিত হবে
এই আলেমের বিরুদ্ধে অভিযোগের শুনানি চলতি বছর নিয়ে দ্বিতীয়বারের মতো স্থগিত করা হয়েছে।  সৌদি আরবে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে ভিন্ন মতাবলম্বীদের বিরুদ্ধে ব্যাপক ধরপাকড়ের সময় তিনি গ্রেফতার হন।
আওদার পরিবার সৌদি গণমাধ্যম জানিয়েছে, সরকারি কৌঁসুলিরা তার মৃত্যুদণ্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করেছেন। তবে তার বিরুদ্ধে কী অভিযোগ, তা প্রকাশ করা হয়নি
তবে মানবাধিকার সংস্থাগুলোর অভিযোগ, রাজনৈতিক প্রতিহিংসা চরিতার্থ করতেই তাকে বিচারের মুখোমুখি করা হয়েছে। নব্বইয়ের দশকে মুসলিম ব্রাদারহুড সংশ্লিষ্ট ইসলামী আন্দোলনের অন্যতম ব্যক্তিত্ব হিসেবে বিবেচনা করা হয় তাকে
অ্যামনেস্টির মধ্যপ্রাচ্যবিষয়ক গবেষণা প্রধান লিন মালুফ বলেন, আমরা খুবই উদ্বিগ্ন যে শেখ সালমান আল-আওদাকে মৃত্যুদণ্ডের সাজা দেওয়া করা হতে পারে
বিবৃতিতে বলা হয়, বছর দুয়েক আগে তিনি আটকের পর বীভীষিকাময় পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যেতে হয়েছে শেখ আওদাকে। বিচারের আগে তাকে দীর্ঘদিন আটক রাখা হয়। মাসের পর মাস নির্জন কারাবাসে আটক ছিলেন তিনি। সময়ে কারও সঙ্গে তাকে দেখা করতে দেওয়া হয়নি। কারাগারে মারাত্মক নির্যাতনের শিকার হন এই মুসলিম ধর্মীয় নেতা
অ্যামনেস্টির তথ্যানুসারে সৌদি আরব কাতারের মধ্যকার সম্ভাব্য মীমাংসাকে স্বাগত জানিয়ে একটি টুইট পোস্ট করার কয়েক ঘণ্টা পরই তিনি আটক হন
২০১৭ সালের জুনে দোহার সঙ্গে সব ধরনের অর্থনৈতিক কূটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে দেশটিকে একঘরে রাখে সৌদি আরব এবং মিত্ররা। কাতারের বিরুদ্ধে অভিযোগ, দেশটি ইসলামী উগ্রপন্থিকে সহায়তা করছে। যদিও সেই অভিযোগ অস্বীকার করছে কাতার
 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only