সোমবার, ২৯ জুলাই, ২০১৯

অপর্ণাদের বিরুদ্ধে এবার প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি হিন্দু মহাসভার

রামচন্দ্র গুহ, অপর্ণা সেন, কৌশিক সেন, গৌতম ঘোষ সহ মোট ৪৯জন বুদ্ধিজীবী প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে চিঠি দিয়েছিলেন দেশজুড়ে বেড়ে চলা মব লিঞ্চিং নিয়ে তাঁর দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য। তা নিয়ে দেশজুড়ে প্রবল শোরগোল পড়ে যায়। তাঁদের পালটা হিসেবে ৬১জন বুদ্ধিজীবী চিঠি দেন প্রধানমন্ত্রীকে। এখানেই শেষ নয়– এই ৪৯জন বুদ্ধিজীবীর বিরুদ্ধে দেশদ্রোহিতার মামলাও দায়ের হয়। আর এবার এই বুদ্ধিজীবীদের বিরুদ্ধে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিল হিন্দু মহাসভা। মহাসভার কয়েকজন সদস্য রীতিমতো রক্ত দিয়ে এই চিঠি লিখেছেন বলে মনে করা হচ্ছে। চিঠিতে তাঁরা প্রধানমন্ত্রীর কাছে দাবি করেছেন– অবিলম্বে এই বুদ্ধিজীবীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে। তাঁদের নিষিদ্ধ করতে হবে। তাঁদের থেকে পুরস্কার কেড়ে নিতে হবে। মব লিঞ্চিংয়ে নিহত মুসলিমদের সরাসরি ‘জঙ্গি’র তকমা দিয়ে মহাসভার মুখপাত্র অশোক পাণ্ডে বলেন– এইসব বুদ্ধিজীবীরা জঙ্গিদের মৃতু্যতে মোমবাতি মিছিল করেন এবং জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে দেশ-বিরোধী স্লোগান দেওয়া ছাত্রদের সমর্থন করেন। এই বুদ্ধিজীবীদের প্রদান করা যে কোনও পুরস্কার কেড়ে নেওয়া উচিত। এই বুদ্ধিজীবীরা দেশকে বিভক্ত করতে চায় দাবি করে পান্ডে বলেন– ‘এই ধরনের লোকরা দেশ বিরোধী যারা দলিত ও মুসলিমদের নির্যাতিত হওয়ার ভুয়ো ছবি এঁকে দেশকে বদনাম করতে চাইছেন। মহাসভার সহ-সভাপতি গজেন্দ্র পাল সিং বলেন– এই শিল্পীদের দেশদ্রোহিতা আইনে অভিযুক্ত করা উচিত। তাঁর প্রশ্ন– এইসব বুদ্ধিজীবীরা তখন কোথায় থাকেন যখন কাশ্মীরে আমাদের নিরাপত্তারক্ষীদের পাথর ছুঁড়ে হত্যা করা হয়? যাঁরা এভাবে মব লিঞ্চিং নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে খোলা চিঠি দিয়ে প্রতিবাদ জানাচ্ছেন তাঁরা আসলে দেশের পক্ষে ভয়ংকর। আরও একধাপ এগিয়ে তিনি বলেন– এইসব বুদ্ধিজীবীদের অতীত ঘেংটে দেখা উচিত। তাঁদের অতীত কাজকর্মে সন্দেহজনক কিছু পাওয়া গেলে তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।         

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only