বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই, ২০১৯

জলবায়ু পরিবর্তন ভারতে বাড়াবে বন্যা, ভূমিধস



সারা বিশ্বের জলবায়ু পরিবর্তন এখন মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।ভারতও এর প্রকোপ থেকে বাদ যায়নি। জলবায়ু পরিবর্তন ফলে ভারতের কোনও জায়গায় অনাবৃষ্টি আর কোনও জায়গায় অতিবৃষ্টি দেখা দিচ্ছে। আবহওয়ার এই খামখেয়ালিতে ভারতের এখন চিন্তা বাড়িয়ে তুলেছে। এতে বিপুল পরিমাণ আর্থিক ক্ষতিও হচ্ছে। সমপ্রতি ভারতের পরিবেশ এবং বন মন্ত্রক জলবায়ু পরিবর্তীত প্রভাব নিয়ে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করেছে।সেখানে বলা হয়েছে, শতকে শেষের দিকে প্রকৃতি এই বিরূপ আচরণ আরও ভয়াবহ হয়ে উঠবে। বিশ্বে করে বিশ্বের তাপমাত্রা ২০৭১ থেকে ২১০০ সাল নাগাদ অনেকখানি বাড়বে, যার সরাসরি প্রভাব ভারতীয় উপমহাদেশে বন্যার তীব্রতাও বাড়বে।

ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যান্ড ইন্ডিয়া: অ্যাসেসমেন্ট এ সেক্টোরাল অ্যান্ড রিজিওনাল অ্যানালাইসিস ফর ২০৩০ শীর্ষক রিপোর্টে এমনই আভাস পাওয়া গিয়েছে।সেখানে বলা হয়েছে, বৈশ্বিক উষ্ণায়ন বৃদ্ধির ফলে হিমালয়ে অঞ্চলে তাপমাত্রা ২.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস বৃদ্ধি পাবে। ২০৩০ সাল নাগাদ এই তাপের তীব্রতা ২ থেকে ১২ শতাংশ পর্যন্ত বাড়বে। তাপমাত্রা বাড়ার কারণে জায়গায় জায়গায় দেখা দেবে আকস্মিক বন্যা, কাদা স্রোত সৃষ্টি হবে। যা ভূমিধসের পরিমাণ বৃদ্ধি করবে। ক্ষতিগ্রস্ত হবে কৃষি জমি। তাতে মানুষে খাদ্য নিরাপত্তাও অসুরক্ষিত হয়ে পড়বে।

ভারতে মৌসম বিভাগ জানিয়েছে, ১৯০১ সালের পর ২০১৮ সালে ভারতে মৌসুমি বৃষ্টি সবচেয়ে কম হয়েছে। এমনকি ১৯০১ সালের পর ২০১৮ সালেই ছিল দেশটির উষ্ণতম বছর। চলতি বছরে ২০১৯ সালে মৌসুমি বর্ষার আগমণ দেরিতে ঘটেছে। জুলাইয়ের ৭ তারিখ নাগাদ বৃষ্টি ঘাটতির পরিমাণ ছিল ২১ শতাংশ। বিগত সাত বছরের মধ্যে মধ্যে সবচেয়ে কম বৃষ্টিপাত হয়েছে এই বছরের জুলাইয়ে। ২০১৪ সালের জুনের পর এটা পরিমাণ ৪২ শতাংশ কম। চলতি বর্ষায় ভারতের ২০টি রাজ্যে আশানুরূপ বৃষ্টি হয়নি। তবে উত্তর পূর্বাঞ্চলে প্রয়োজনের তুলনায় অনেক বেশি বৃষ্টি হয়েছে।তা থেকে বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।


একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only