মঙ্গলবার, ৩০ জুলাই, ২০১৯

কাল দেশজুড়ে ধর্মঘটের ডাক আইএমের, কেন জানেন কি?

 সম্প্রতি ন্যাশনাল মেডিক্যাল কমিশন বিলে সম্মতি জানিয়েছে লোকসভা। এই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে বুধবার সারাদেশ ব্যাপী ধর্মঘট পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইএমএ-র কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব। মঙ্গলবার একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করে তাঁদের এই সিদ্ধান্তের কথা জানানো হয়। ওই বিজ্ঞপ্তিতে কাল সকাল ছ’টা থেকে বৃহস্পতিবার ৬টা পর্যন্ত ধর্মঘট পালন করার আহ্বান করা হয়েছে। তবে এতে হাসপাতালের আউটডোর ও চিকিৎসকদের নিজস্ব চেম্বার বন্ধ রাখার অনুরোধ করা হলেও চিকিৎসাকেন্দ্রগুলিতে জরুরি বিভাগ– ক্যাজুয়ালটি ও আইসিইউ ইত্যাদি ধর্মঘটের আওতামুক্ত থাকবে বলে পরিষ্কারভাবে উল্লেখ করা হয়েছে।

গতবছর থেকেই এই এনএমসি বিলের বিরোধিতায় পথে নেমেছিল আইএমএ। তবে এই ইস্যুকে কেন্দ্র করে দেশজুড়ে এই প্রথমবার ধর্মধটের ডাক দিয়েছে তারা। এই বিল অনুযায়ী, ৬ মাসের প্রশিক্ষণ দিয়ে আয়ুশ, ডেন্টাল চিকিৎসকেরা এবার থেকে মর্ডান মেডিসিনের চিকিৎসা করতে পারবেন। এই বিলের ৩২ নম্বর ধারায় বলা হয়েছে সাড়ে তিন লক্ষ কমিউনিটি হেলথ প্রোভাইডার তৈরি করা হবে ছ’মাসের প্রশিক্ষণ দিয়ে। আইএমএ-র প্রধান আপত্তি এই হাতুড়ে তৈরির উদ্যোগকে ঘিরেই।
তাদের মতে, এই ধরনের ব্রিজ কোর্স করা ডাক্তাররা কখনোই দেশের স্ট্যান্ডার্ড ট্রিটমেন্ট গাইডলাইন মেনে চিকিৎসা করতে পারেন না। বিপদে পড়বেন রোগীরা।
এ ছাড়া অন্যান্য ধারায় মেডিক্যাল পরীক্ষাকে ঘিরে যে অসংগতিগুলো আছে, সেই সম্বন্ধেও আপত্তি জানাচ্ছে আইএমএ। বিল অনুযায়ী মেডিক্যাল কলেজগুলোর পঞ্চাশ শতাংশেরও বেশি সিট ম্যানেজমেন্ট কোটায় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। যার ওপর কোনও সরকারি নিয়ন্ত্রণ থাকবে না। আইএমএ-র আশঙ্কা– এতে পয়সা থাকলেই অযোগ্য পড়ুয়ারা ডাক্তার হতে পারবেন। এ ছাড়াও এই বিলে ন্যাশনাল এক্সিট টেস্টের কথা বলা হয়েছে। তাতে বলা হয়েছে যে– এমবিবিএস-এর ফাইনাল পরীক্ষার নম্বরের ভিত্তিতেই স্নাতকোত্তরে ভর্তি হবে। এতদিন পর্যন্ত যে আলাদা প্রবেশিকা পরীক্ষা হত– তা আর হবে না। এর ফলে অনেক পড়ুয়াই উচ্চশিক্ষার সুযোগ হারাবেন।
  

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only