রবিবার, ১৪ জুলাই, ২০১৯

মল্লারপুর বিস্ফোরণ কাণ্ডে ধৃত ক্লাবের কোষাধ্যক্ষ

দেবশ্রী মজুমদার, রামপুরহাট, ১৪ জুলাই:- মল্লারপুরের ক্লাবে বিস্ফোরণের ঘটনায় এবার ক্লাবের কোষাধ্যক্ষ বিপ্লব দত্তকে গ্রেফতার করল পুলিশ। রবিবার তাকে রামপুরহাট মহকুমা বিশেষ আদালতে তোলা হলে বিচারক দশ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন। পুলিশ তদন্তে জানতে পেরেছে ক্লাবের আলমারির মধ্যে রাখা ছিল বোমা। তার জেরেই এই বিস্ফোরণ। আর এই আলমারির চাবি ছিল বিপ্লববাবুর কাছেই। যদিও ক্লাব সদস্যদের দাবি, পেশায় কাঁসা পিতলের ব্যবসায়ী। বিপ্লব কোনরকম অসামাজিক কাজের সঙ্গে যুক্ত নয়।
এদিকে এই ঘটনার পর বিজেপির তরফে আন্দোলনের হুমকি দেন জেলা বিজেপি সভাপতি শ্যামাপদ মণ্ডল। তিনি বলেন, ২৩ টি থানায় প্রতিদিন দুজন বিজেপি কর্মীর বিরুদ্ধে পুলিশ কেশ দিচ্ছে। এসবের জন্য আমরা প্রস্তুত। আমরা জানতাম মল্লারপুরের ঘটনায় বিজেপি কর্মীকে ধরবে পুলিশ। পুলিশ মনমত কাজ করছিল না বলে মল্লারপুরের ওসিকে সরিয়ে দিল তৃণমূল। যিনি নতুন এসেছেন, তিনি উনাদের কথামত কাজ করছেন। এতদিন আগের ঘটনা। তখন পুলিশ কিছু করল না। এখন বেছে বেছে বিজেপি কর্মীদের জড়ানো হচ্ছে। আমরা এর জবাব দেব।  
প্রসঙ্গত, চলতি বছরের ৩০ জুন রাতে ভয়াবহ বিস্ফোরণে কেঁপে ওঠে মল্লারপুরের ষ্টেশন সংলগ্ন এলাকা। বিস্ফোরণের তীব্রতায় ভেঙে পড়ে ক্লাবের তিনতলা ঘরের নিচের অংশ। ঘটনার বেশ কিছুক্ষণ পর সেখানে যায় মল্লারপুর থানার পুলিশ। বিস্ফোরণ কাণ্ডে কর্তব্যে গাফিলতির অভিযোগে সরিয়ে দেওয়া হয় মল্লারপুর থানার ওসি টুবাই ভৌমিককে। এরপরেই তাকে সাসপেন্ড করে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত শুরু করা হয়। সাসপেন্ড করা হয় ওসির গাড়ির চালক, দুই কনস্টবল এবং দুই ভিলেজ পুলিশকে। বিস্ফোরণ কাণ্ডে ৬ জুলাই গ্রেফতার করা হয় মিঠু শেখ নামে এক ক্লাব সদস্যকে। মিঠু পেশায় রাজমিস্ত্রি। তাঁর বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল ২০০৯ সালে সংঘর্ষের সময় সে বোমা সরবরাহ করেছিল। এরপরেই শনিবার রাত্রে ক্লাবের কোষাধ্যক্ষকে গ্রেফতার করে পুলিশ।  বিচারক সিদ্ধার্থ সিদ্ধার্থ শঙ্কর রায় চৌধুরী ধৃতকে দশ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দেন।  সরকারি আইনজীবী সুরজিত সিনহা বলেন, “তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে বিস্ফোরক রাখা হয়েছিল আলমারির মধ্যেই।  ওই আলমারির চাবি ছিল ধৃত বিপ্লব দত্তর কাছে। তাই তাকে এই মামলায় গ্রেফতার করা হয়েছে”।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only