সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০১৯

জেলা জুড়ে ধর পাকড়ে ৪৪৩ গ্রেফতার- উদ্ধার বোমা, সরঞ্জাম ও আগ্নেয়াস্ত্র

পুবেরকলম প্রতিবেদক, বীরভূম, ১৫জুলাই: রবিবার রাতে জেলা জুড়ে ধর পাকড়ে ৪৪৩ জন গ্রেফতার ও উদ্ধার প্রচুর পরিমাণ অস্ত্র, বোমা বারুদ।
জেলা প্রশাসনের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময়ে আইন শৃঙ্খলার অবনতি ও রাজনৈতিক সংঘর্ষ ঘিরে পুলিশের দিকে অভিযোগের আঙুল ওঠে। বীরভূম যে বারুদের স্তুপের উপর বসে আছে এমন অভিযোগও ওঠে। জেলার ২৪টি পুলিশ স্টেশনে এই বিপুল পরিমাণ অস্ত্র বোমা উদ্ধার পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হবে বলে পুলিশ প্রশাসনের ধারণা। ৬ জুলাই পুলিশ ৪০৮জন ব‍্যাক্তিকে গ্রেফতার করে ও প্রচুর বোমা বারুদ উদ্ধার করে। রবিবার রাতে ফের এই পুলিশি তৎপরতা জেলা জুড়ে দেখা গেছে। ৪৪৩জনের মধ্যে ৮২জন গ্রেফতার হয় বিভিন্ন মামলার জেরে। ১৯৩জন গ্রেফতার হয় বিভিন্ন ধারায়, ১১৬জন গ্রেফতার হয় বকেয়া ওয়ারেন্টের জেরে। জেলা পুলিশ সুপার জানান, গ্রেফতার ছাড়াও বিপুল পরিমাণ অস্ত্র বোমা উদ্ধার করে পুলিশ। জানা গেছে, ২৬৮টি তাজা বোমা, ১৮০ কেজি এমোনিয়াম নাইট্রেট, ৬৩০টি ডেটোনেটর, ১২৫ টি জিলোটিন স্টিক উদ্ধার হয়। এছাড়াও ৬টি দেশী আগ্নেয়াস্ত্র, সাত রাউন্ড গুলি উদ্ধার হয়েছে। জানা গেছে, ১৪২টি তাজা বোমা উদ্ধার হয়েছে লোকপুর থানা, ৬০টি বোমা কাঁকড়তলা থানা, ২০টি পাঁড়ুই, ১৬টি বোমা সদাইপুর থানা থেকে। ১০০ কেজি এমোনিয়াম নাইট্রেট, ৬০০টি ডিটোনেটর, ৯৫টি জিলোটিন স্টিক উদ্ধার হয় রামপুরহাট থানা এলাকা থেকে। ৮০ কেজি এমোনিয়াম নাইট্রেট, ৩০ পিস ডিটোনেটর, ৩০টি জিলোটিন স্টিক মুহাম্মদ বাজার এলাকা থেকে। রবিবার সকালে নলহাটি থানার পুলিশ নগরা বাসস্ট্যান্ড থেকে সূর্য সেখ নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে। তার বাড়ি একই থানার বারা গ্রামে। বাস স্ট্যান্ডে ঘোরাঘুরির সময় তাকে পুলিশ ধরে ও তার কাছ থেকে ৭.৬৫ এমএম একটি পিস্তল ও কার্তুজ উদ্ধার হয়। অন‍্যদিকে, মুরারই থানার রুপরামপুর মোড় থেকে পুলিশ আনারুল সেখ নামে এক যুবককে গ্রেফতার করে। তার কাছ থেকে একটি এক নলা বন্দুক ও কার্তুজ উদ্ধার হয়। দুজনকে রামপুরহাট আদালতে চালান করা হয়। পুলিশ জানতে চেষ্টা করছে, ধৃতরা কি কারণে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে ঘোরাঘুরি করছিল।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only