রবিবার, ৭ জুলাই, ২০১৯

তল্লাশি চালিয়ে ১৫০টির বেশি তাজা বোমা সহ আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার বীরভূমে

দেবশ্রী মজুমদার, বীরভূম, ৭ জুলাই : জেলায় জোড়া বিস্ফোরণের পর নড়েচড়ে বসেছে বীরভূম জেলা পুলিশ প্রসাশন। ১ জুলাই মল্লারপুরের স্থানীয় ক্লাবে এবং ৪ জুলাই লাভপুরে উপস্বাস্থ্য কেন্দ্র বোমা বিস্ফোরণ ঘটনা কেন্দ্র জেলাপুলিশ নড়েচড়ে বসেছে। ৬ জুলাই রাত ভোর গোপনসূত্রে খবর পেয়ে বীরভূমের নানুর, লাভপুর, রামপুরহাট, পাড়ুয়, সদাইপুর, বিভিন্ন এলকা থানার পুলিশ অফিসার রাত ভোর তল্লাশি চালিয়ে ১৫০ বেশি তাজাবোমা, ৮টি অত্যাধুনিক সকেট বোমা, ১০ রাউন্ড গুলি, ৩৯৯ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ অপরদিকে ৯জন ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে অস্ত্র উদ্ধারের অভিযোগ তাঁদের বিরুদ্ধে বেআইনি অস্ত্রমামলা রুজু করা হয়েছে। সোমবার সমস্ত অভিযুক্তকে আদলতে তোলা হবে। এমনি বক্তব্য দিয়েছেনবীরভূমের পুলিশ সুপার শ্যাম সিং। অন্যদিকে পাড়ুয়থানার অন্তর্গত সাত্তোর গ্রামের একটি কালভেট থেকে প্রায় ৪০ টি তাজা বোমা উদ্ধার করে পাড়ুয় থানার পুলিশ ইনচার্জ দেবব্রত সির্নহা, একই সঙ্গে সদাইপুর থানার লালমোহনপূর নাজমুল হকের বাড়ির পিছনে থেকে ৮টি সকেট বোমা উদ্ধার করে। এইরকম ভাবে নানুর, লাভপুর, মল্লারপুর, থানার পুলিশ অভিযানচালিয়ে বোমা, সকেট বোমা, গুলি, উদ্ধার করছে। তবেপুলিশের এই সক্রিয় ভূমিকা রাজনৈতিক রঙ মাখতে শুরু করছে বীরভূম জেলা বিজেপি সভাপতি শ্যামাপদ মন্ডল জানান যে নির্বাচন আগে বীরভূম জেলাতে বারুদের স্তূপ পরিণত ছিল তবে সেই পঞ্চায়েত ব্যবহার করতে পারে, কিন্তু লোকসভা নির্বাচনে তা সক্ষম হয় নিশাষক দলের জলহস্তী। এবার পালা বদল ঘটেছে পুলিশ সক্রিয়ভূমিকা পালন করছে কিন্তু সরকারকে খুশি করার জন্য বিজেপি নতুন বা পুরাতন কর্মীদের উপর মিথ্যা মামলা করে ফাঁসিয়ে দেওয়া হচ্ছে। যদি কোনো বিনা অপরাধে গ্রেফতার করে থাকে আইনি পথে লড়বো এবং পুলিশের বিরুদ্ধে কঠিন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। একইসঙ্গে পুলিশের এই সক্রিয় ভূমিকা পালনকে বিজেপি নেতৃত্ব তাঁদের চাপে বলেছেন একাধিক বার লাভপুর পাড়ুয় জেলার একাধিক থানা ঘেরাও এর কর্মসূচি ফলে এই পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বাধ্য হয়েছে জেলাপুলিশ। অন্যদিকে তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মন্ডল বিশেষ কারণে অসুস্থ থাকার কারণে কলকাতা এসএসকেএম চিকিৎসধীন এবং তাঁর অস্ত্র প্রচার হয়েছে। এই কারণে তাঁর কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। তবে জেলার অন্যান্য নেতৃবৃন্দ জানান যে বিজেপিকর্মী সমর্থকরা বোমা মজুত করছে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে ব্যবহার করার জন্য। বিজেপি জানে বীরভূম জেলাতে তৃণমূলকে সাড়ানো মুশকিল তাই বোমা, গুলি, অস্ত্র ভিন্ন রাজ্য লোক ঢুকে এইসব কারবার করছে। প্রশ্ন উঠেছে বিস্ফোরণ কী থামবে বীরভূম জেলাতে, বোমা মুক্ত হবে বীরভূম না রাজনৈতিক সংগঠন কর্ম কান্ডে জেলা বাসিন্দারা আতঙ্কিত হয়ে পড়বে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only