রবিবার, ৭ জুলাই, ২০১৯

বসিরহাট জেলা হাসপাতালে সাফাই অভিযানে স্বয়ং পুলিশ সুপার ও হাসপাতাল সুপার

ইনামুল হক, বসিরহাটঃ ঝাঁটা, কোদাল হাতে বসিরহাট স্বাস্থ্য জেলার সাফাই অভিযানে বসিরহাট পুলিশ জেলার সুপারকে সবেরি রাজকুমার, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার চন্দন, এস ডি পি ও অশেষ মৌর্য ,আইসি প্রেমাশিষ চট্টরাজ ও হাসপাতাল সুপার শ্যামল হালদাররা। এ চিত্র বসিরহাট জেলা হাসপাতাল চত্বরের। উদ্যোগ আরো বেশি মানুষের কাছে স্বচ্ছতার বার্তা পৌঁছে যাবে বলে আশাবাদী পুলিশ প্রশাসন থেকে স্বাস্থ্য আধিকারিকরা। কোনো রকম ভাবে মানুষ সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে সরে না যান সে বিষয়ে সচেতন করতে এই উদ্যোগ। রবিবার পুলিশ আধিকারিক ও সহকারী স্বাস্থ্য কর্মীরা পুলিশের উদ্যোগে হাসপাতাল চত্বরে যে সব নোংরা আবর্জনা ও গাছপালা রয়েছে সেগুলি হাতে গ্লাসও ঝাঁটা নিয়ে পরিষ্কার করা, গাছ কাটা, তাছাড়া ব্লিচিং পাউডার ছড়িয়ে হাসপাতাল চত্বরে এই অভিযান চলল প্রায় এক ঘণ্টা ধরে। এই ধরণের উদ্যোগকে এক দিকে যেমন স্বাস্থ্য আধিকারিক থেকে চিকিৎসকরা ও রোগী ও রোগীর পরিবার বাহবা দিয়েছেন। অন্যদিকে পুলিশ ও চিকিৎসকের মধ্যে একটা নিবিড় সম্পর্ক মেলবন্ধন তৈরি করতে এই ধরনের উদ্যোগ দৃষ্টান্ত তৈরি করেছে। চিকিৎসক ও পুলিশ আরও বেশি কাছাকাছি হল। এনআরএস কান্ডে পুলিশের সামনে চিকিৎসক নিগ্রহ ঘটনায় রাজ্য তথা দেশ সারা বিশ্বে এই আন্দোলন ছড়িয়ে গিয়েছিল। তা থেকে শিক্ষা নিয়ে  এই উদ্যোগ। একদিকে যেমন পুলিশের কাজ মানুষের নিরাপত্তা দেওয়া, দুষ্কৃতী দমন করা। অন্যদিকে চিকিৎসকরা যাতে সমাজের কল্যাণে সুষ্ঠু ভাবে রোগীদের সেবা করতে পারেন সেই রকম একটা যৌথ মেল বন্ধন গড়ে উঠবে বলে আশাবাদী জেলা প্রশাসন। আগামী দিনে এই ধরনের উদ্যোগ আরো বেশি মানুষের কাছে পৌঁছে যাবে বলে মনে করেন পুলিশ প্রশাসন থেকে স্বাস্থ্য আধিকারিকরা। যাতে কোনো রকম ভাবে মানুষ সামাজিক দায়বদ্ধতার কথা ভুলে না যায় সবরকম চেষ্টা করা হবে বলে   মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় একদিকে চিকিৎসকদের পাশে যেমন থেকেছেন অন্যদিকে পুলিশকেও বিভিন্ন রকম ভাবে মানুষের সেবা করার কাজে উৎসাহিত করেছেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only