মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই, ২০১৯

মুম্বাইতে বহুতল ভবন ভেঙে পড়ায় মৃত ২, ক্ষুব্ধ বিধায়ক ওয়ারিশ পাঠান


পুবের কলম ওয়েব ডেস্ক : মহারাষ্ট্রের মুম্বাইতে চার তলা ভবন ভেঙে পড়ায় ২ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। ধ্বংসস্তূপের মধ্যে কমপক্ষে ৪০ থেকে ৫০জন আটকে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।
আজ (মঙ্গলবার) সকাল ১২টা নাগাদ মুম্বাইয়ের জনবহুল এলাকা ডোংরির খুব কাছে ওই দুর্ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থলে পৌঁছে জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী উদ্ধারের কাজ শুরু করেছে। ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্যের জন্য ঘটনাস্থলে অ্যাম্বুলেন্স ও দমকল বাহিনীর গাড়ি পৌঁছেছে। জাতীয় বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী কংক্রিটের ধ্বংসাবশেষ সরিয়ে আটকে পড়া মানুষজনকে উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে।

আজ ১১টা ৪৮ মিনিটে ডোংরির ট্যান্ডেল গলিতে বহু পুরনো একটি ভবনের একাংশ ভেঙে পড়ে। ভবনটি আব্দুল হামিদ শাহ দরগাহের পিছনে এবং বেশ পুরনো পুরনো। প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন, ওই ভবনটিতে ৮ থেকে ১০টি পরিবার বাস করেন।

এদিকে, ওই ঘটনা প্রসঙ্গে মজলিশ-ই-ইতেহাদুল মুসলেমিন বিধায়ক ওয়ারিশ পাঠান বলেছেন, ‘এটা দুর্ঘটনা নয়, এটা হত্যা। আমি বিগত পাঁচ বছর ধরে জরাজীর্ণ ভবনের বিষয়টি উত্থাপন করে আসছি। বেশ কয়েকবার বিধানসভার মধ্যে এই বিষয়ে প্রশ্ন তুলেছি। সরকারের পক্ষ থেকে আশ্বাস দেওয়া হলেও এপর্যন্ত কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। এই এলাকা বাসযোগ্য নয়। আমি সরকারের কাছে অনেকবার দাবি জানিয়েছি আশেপাশের এলাকায় শিবির বানিয়ে মানুষজনকে সেখানে রাখা হোক। পরে নতুন ভবন তৈরি হলে পুনরায় সেখানে তাদের বাস করার অনুমতি দেয়া হোক।’

মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবিস বলেন, আমি জানতে পেরেছি ওই ভবনটি একশ’ বছরের পুরোনো। ভবনটিতে কমপক্ষে ১৫ টি পরিবার বাস করেন। এই মুহূর্তে আমাদের লক্ষ্য হল ধ্বংসস্তূপ থেকে মানুষজনকে বের করে আনা।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only