শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০১৯

স্বচ্ছতায় গমন বিশ্বভারতীর

দেবশ্রী মজুমদার, শান্তি নিকেতন,১৩ জুলাই: আক্ষরিক অর্থেই স্বচ্ছতার প্রয়োজনে পদক্ষেপ বিশ্বভারতীর।  শনিবার বিকেলে স্বচ্ছতার অঙ্গীকারে উপাসনা মন্দিরে হাজির ছিল বিশ্বভারতীর গোটা পরিবার। পার্থেনিয়ামের মত বিষাক্ত আগাছা নির্মূলের জন্য একসাথে কাজ করবেন তাঁরা। কারণ এই পার্থেনিয়াম গাছ চর্ম ও শ্বাসকষ্ট জনিত রোগের জন্য দায়ী, বলে জানান বিশ্ববিদ্যালয়ের এক অধ‍্যাপক।  বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত কর্মসচিব সৌগত চট্টোপাধ্যায় জানান, প্রতিমাসের দ্বিতীয় বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল সদস্য স্বছ অভিযানে অংশ গ্রহণ করে। এবার পার্থেনিয়াম নির্মূল অভিযান শুরু হবে।  অন‍্যদিকে, দৃশ্য দূষণ রোধে বিশ্ববিদ্যালয়ের দেওয়ালে রাজনৈতিক শ্লোগান মুছে সেখানে সুন্দর চিত্র ফুটিয়ে তুলবে কলাভবনের ছাত্র ছাত্রীরা। এছাড়াও, স্বচ্ছতার অঙ্গ হিসেবে প্রাণীবিদ্যা বিভাগের পাঁচটি করে ঘর এক প্রাক্তন অধ‍্যাপক অধিগ্রহণ করেছিলেন তা গবেষণার স্বার্থে নবীন অধ‍্যাপকদের জন্য ও পাশাপাশি আরেক প্রাক্তন অধ‍্যাপক সংস্কৃত বিভাগের পাঁচটি ঘর  অধিগ্রহণ করে রেখেছিলেন। সেই ঘরগুলো অন‍্য বিভাগের ছাত্র ছাত্রীদের জন্য খুলে দেওয়া হবে। এর মধ্যে ২০০৬ সাল থেকে প্রাণীবিদ্যা বিভাগের পাঁচটি ঘর অধিগৃহিত ছিল বলে বিশ্বভারতী সূত্রে জানা গেছে। বিশ্ব ভারতী নিজে ওড়িয়া, ভাষা ভবনের পাঁচটি ঘর অধিগ্রহণ করে রেখেছিল। সেগুলো সাঁওতালি ও আরবি ভাষার ছাত্র ছাত্রীদের ব‍্যবহারের সুযোগ করে দিয়েছে। রাজনীতির অঙ্গনে অবসরের পরও দুই একজন ছাড়া অনেক পদমর্যাদা সম্পন্ন ব‍্যক্তিদের সরকারি আবাসন ছাড়তে চান না। কবির বিশ্বভারতী যে ব‍্যতিক্রম নয় তা এই ঘটনা প্রমাণ করে। তবে কর্তৃপক্ষর ব‍্যবস্থা গ্রহণে সাধুবাদ জানিয়েছেন অনেক আশ্রমিক। উল্লেখ্য, ইতিমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের দুটি মুখ‍্যদ্বারের সামনে দখল মুক্ত করা হয়েছে ও সৌন্দর্যায়ন করা হয়েছে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only