বৃহস্পতিবার, ১ আগস্ট, ২০১৯

হাজি মুহাম্মদ মহসিনকে মরণোত্তর ভারতরত্ন দেওয়ার দাবি ফিরহাদের

সমাজের উন্নয়ন ও শিক্ষা বিস্তারে মানুষের জন্য সর্বস্ব দান করেছেন হাজি মুহাম্মদ মহসিন।তাঁর অবদান অপূরণীয়।সে কথা স্মরণ করে তাঁকে মরণোত্তর ভারতরত্ন দেওয়ার দাবি তুললেন পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। বৃহস্পতিবার পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগম আয়োজিত হাজি মুহাম্মদ মহসিন এনডাওমেন্ট ফান্ডের স্কলারশিপ প্রদান অনুষ্ঠানে মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম বলেন, অনেকে কিছু জায়গায় কলেজ করেছেন, কিছু জায়গায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান করেছেন। কিন্তু মানুষের জন্য সর্বস্ব দান করেছেন, এমন মানুষ হাজি মহসিনের আগে ও পরে কেউ আসেননি। মন্ত্রী ফিরহাদের প্রশ্ন, যে মানুষ সারা জীবনটা মানুষের স্বার্থে দিয়ে গিয়েছেন– তাঁকে কেন ‘ভারতরত্ন’ দেওয়া হবে না?
 
 এদিনের অনুষ্ঠানে মন্ত্রী সিদ্দিকুল্লা চৌধুরি বলেন, শিক্ষা বিস্তারে মুসলিমদের অনন্য ভূমিকা রয়েছে। ছাত্রছাত্রীদের আর্থিক ভাবে এগিয়ে দেওয়ার জন্য উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে গিয়েছেন হাজি মুহাম্মদ মহসিন । এখনও দেশের ২৭ শতাংশ মানুষ নিরক্ষর রয়েছেন। তাদের সাক্ষর করে তোলার পরামর্শ দেন তিনি।

বৃহস্পতিবার ছিল হাজি মুহাম্মদ মহসিনের ২৮৭তম জন্ম দিন। তাঁর জন্মদিবস স্মরণে এদিনের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এই অনুষ্ঠানে হাজি মুহাম্মদ মহসিনের জীবনের কর্মকান্ডের কথা বর্ণনা করেন পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগমের চেয়ারম্যান ও সংখ্যালঘু দফতরের যুগ্ম সচিব পিবি সালিম। এদিনের অনুষ্ঠানে হাজি মুহাম্মদ মহসিনের অবদানের উপর তৈরি তথ্যচিত্র প্রোজেক্টারের মাধ্যমে দেখানো হয়। এদিন মোট ১০৭ জন ছাত্রছাত্রীর হাতে ২১ লক্ষ ৪০ হাজার টাকার হাজি মুহাম্মদ মহসিন স্কলারশিপ প্রদান করা হয়।  এদিনের অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রী গিয়াসউদ্দিন মোল্লা, সংখ্যালঘু কমিশনের চেয়ারম্যান আবু আয়েস মন্ডল, মাদ্রাসা শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি ড. আবু তাহের কামরুদ্দিন, সংখ্যালঘু দফতরের আধিকারিক সাকিল আহমেদ, মাদ্রাসা শিক্ষা পর্ষদ ও হজ কমিটির সদস্য এ কে এম ফারহাদ, আল আমীন মিশনের কর্ণধার নুরুল ইসলাম প্রমুখ।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only