বৃহস্পতিবার, ১ আগস্ট, ২০১৯

ডায়মন্ডহারবারে ১১৭ নং জাতীয় সড়কে ধস!



আসিফ রেজা আনসারী, ডায়মন্ড হারবার: অনেক দিন ধরেই আশঙ্কা করা হচ্ছিল।এবার তা সত্যি এমনটা ঘটে গেল। ডায়মন্ড হারবারে গঙ্গার পাড় বরাবর ব্যাপক ধসে ১১৭ নম্বর জাতীয় সড়কে বেশ কিছু অংশ এখন নদী গর্ভে। আজ বৃহস্পতিবার সকালে নদী ভাঙনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে।
শুধু তাই নয় ডায়মন্ড হারবার হয়ে কাকদ্বীপ কলকাতা রুটে ব্যপক যানজটের পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে এদিন। স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, আজ সকালে প্রতিদিনের মতো হুগলি নদীর ধারে সৌন্দর্যায়নের কাজ চলছিল। সেইসময় জোয়ারের জল এসে যাওয়ায় এই দুর্ঘটনা ঘটে। মূহুর্তে নদীর জলের তোড়ে জাতীয় সড়ক জলের তলায় চলে যায়।

প্রসঙ্গত, বিগত কয়েকমাস ধরে স্থানীয় সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অর্থানুকূল্যে নদীর ধারে সৌন্দর্যায়নের কাজ চলছিল। এদিন বড় ধরনের দুর্ঘটনা না ঘটলেও রাস্তা এক প্রকার বন্ধ। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন বিধায়ক দীপক কুমার হালদার। প্রসঙ্গত, দক্ষিণ ২৪ পরগনা জেলার শেষ প্রান্ত কাকদ্বীপের সঙ্গে কলকাতার সংযোগের এটিই একমাত্র সড়কপথ। বিভিন্ন গাড়িকে বিকল্প রাস্তায় ঘুরিয়ে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছে প্রশাসন তবুও পুরো এলাকা জুড়ে ব্যপক যানজট। উল্লেখ্য, নদীর ধারে প্রিন্সেপ ঘাটের আদলে পার্ক তৈরির কাজ চলছিল। ইতিমধ্যেই কয়েক কোটি টাকা খরচ হয়েছে। এদিন সেই প্রকল্পের অনেকটাই জলের তলায় চলে গিয়েছে। দুটি জেসিবি গাড়িও নদীর গর্ভে বলে খবর।
অন্যদিকে প্রকল্পের উদ্দেশ্যে নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন বিশেষজ্ঞরা। প্রাকৃতিক বাধা উপেক্ষা করতে নদীর ধারে এমন পার্ক বা বাঁধ দেওয়া যায়? প্রশ্ন তুলেছেন বিশিষ্ট নদী বিজ্ঞানী মলয় মুখোপাধ্যায়। নদীকে তার আপন পথে চলতে দিতে হবে সঙ্গে জিওমর্ফোলজিক্যাল অবস্থা পর্যবেক্ষণ করার জরুরি অভিমত বিজ্ঞানীদের।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only