শনিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৯

২৩৩ যাত্রীর জীবন বাঁচিয়ে বীরের সম্মান পেলেন রুশ বিমান চালক



মস্কো, ১৭ আগস্ট: পাখির ঝাঁকের সঙ্গে ধাক্কা লেগে বিকল হয়ে যাওয়া ইঞ্জিন নিয়ে সাহসীকতার সঙ্গে বিমানকে জরুরি অবতরণ করিয়ে ছিলেন রুশ পাইলট দামির ইয়ুসুপভের।তাঁর এই বিচক্ষণতায় বিমানে থাকা ২৩৩ জন যাত্রী প্রাণে বেঁচে গিয়েছেন। এই জন্য তাঁকে শুক্রবার রাশিয়ার সর্বোচ্চ বীরের মর্যাদার পদক প্রদান করলেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন।
৪১ বছরের অভিজ্ঞ পাইলট দামির ইয়ুসুপভ জানিয়েছেন, তিনি এই সম্মান পেয়ে 'ইতস্তত ও লজ্জিত বোধ' করছেন। কারণ, তিনি মনে করে, ওই মূহুর্তে শুধু বিমানের ক্যাপটেন হিসাবে তাঁর দায়িত্ব পালন করেছেন, এর থেকে বেশি কিছু করেননি। পাশাপাশি তিনি আহত যাত্রীদের দ্রুত আরোগ্য কামনা করেন।
ওই দিনের অভিজ্ঞতা সম্পর্কে ইয়ুসুপভ জানিয়েছেন,'আমি মূহুর্তে কোনও রকমের ভয় অনুভব করিনি। তখন কোনও ভাবে বিমানটিকে অবতরণ করানোটাই জরুরি মনে হয়ে ছিল। তাই, চোখের সামনে বিস্তৃণ ভুট্টা চাষের জমি দেখে সেখানেই সাবধানে বিমানটিকে অবতরণ করানো চেষ্টা করেছি মাত্র'
জানা গিয়েছে, ইয়ুসুপভের বাবাও একজন হেকপ্টর পাইলট ছিলেন। বিমান চালানো শেখার আগে কাজ  তিনি আইনজীবী ছিলেন।৩২ বছর বয়সে প্রথম বিমান চালানো শেখেন। এখনও পর্যন্ত ৩০০০ ঘণ্টার বেশি সময় ধরে বিমান ওড়ানোর রেকর্ড রয়েছে তাঁর ঝুলিতে। গত বছরই ক্যাপটেন হিসাবে তাঁর পদন্নতি হয়তবে শুধু ইয়ুসুপভই নন, তার সহকারি বিমান চালক ২৩ বছরের জর্জি মুরজিন এবং ক্রুদেরও বীর সম্মান প্রদান করা হয়েছে। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only