মঙ্গলবার, ২৭ আগস্ট, ২০১৯

কৃষ্ণের মতো বাঁশি বাজাতে পারলে গরু বেশি দুধ দেবে!

আপনার গরু কি কম দুধ দিচ্ছে? চিন্তা করবেন না। মুশকিল আসান হিসেবে হাজির অসমের এক বিজেপি বিধায়ক। তাঁর পরামর্শ, বাঁশি বাজানো শিখতে হবে অবিকল কৃষ্ণের মতো। শ্রীকৃষ্ণের মতো বাঁশিতে সুর তুলতে হবে আপনাকে। তা শুনে গো-মাতা ‘খুশ’ হয়ে কলকল করে দুধ দিতে শুরু করবে। আপনার দুধের বালতি উপচে পড়বে।   

বিরোধীরা ‘কালাজাদু’ করছে বলেই প্রমোদ মহাজন, সুষমা স্বরাজ, বাবুলাল গৌড়, অরুণ জেটলির মতো বিজেপির তাবড় নেতারা অকালে মারা যাচ্ছেন। এমনই মন্তব্য করে প্রবল বিতর্ক তৈরি করেছেন বিজেপি সাংসদ সাধ্বী প্রজ্ঞা। তার রেশ কাটতে না কাটতেই এবার আরও একটি বিতর্কিত মন্তব্য করে বসলেন শিলচরের বিজেপি বিধায়ক দিলীপ কুমার পাল। তাঁর দাবি, ভগবান কৃষ্ণের মতো বাঁশি বাজাতে পারলে গরুরা আরও বেশি করে দুধ দিতে শুরু করবে। তিনি বলেছেন, গরু বেশি করে দুধ দেবে যদি তারা সেই সুর শোনে, যা একসময় ভগবান কৃষ্ণের বাঁশিতে শোনা যেত। সম্প্রতি, নিজের নির্বাচনী কেন্দ্রের এক সাংস্কূতিক অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে এমনই মন্তব্য করেন তিনি।

 এই প্রসঙ্গে প্রশ্ন করা হলে মঙ্গলবার ওই বিধায়কের ব্যাখ্যা, ‘আমি নৃত্য ও সংগীতের ইতিবাচক প্রভাব সম্পর্কে শ্রোতাদের বলেছিলাম– এটা বিজ্ঞানসম্মতভাবে প্রমাণিত যে– যদি গরুকে সেই বাঁশির সুর শোনানো যায় যা একসময় ভগবান কৃষ্ণের বাঁশিতে শোনা যেত, তাহলে গরু আরও বেশি করে দুধ দেবে।’ কোথায় বিজ্ঞানসম্মতভাবে এমন প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে? জবাবে বিধায়ক দাবি করেন, গুজরাতের একটি এনজিও কয়েক বছর আগে এই ধরনের একটি গবেষণা করেছিল। সেখানে বাঁশির সুরের সঙ্গে গরুর বেশি দুধ দেওয়ার মধ্যে সম্পর্ক প্রমাণিত হয়েছে। 

তিনি আরও জানান, বিদেশি প্রজাতির গরু ধবধবে সাদা দুধ দেয়। ভারতের দেশি গরুর দুধ একটু হলদেটে হয় যা, বিদেশি প্রজাতির গরুর দুধের থেকে অনেক সুস্বাদু ও স্বাস্থ্যকর। তবে– গরু বিশেষ কিছু মিউজিক পছন্দ করে বলে ২০০১ সালে দাবি করেছিলেন ইংল্যান্ডের ‘ইউনিভার্সিটি অফ লিসেস্টার’-এর দুই মনোবিদ। তাঁরা দাবি করেছিলেন– ‘সফ্ট’ ও ‘স্লো’ মিউজিক শোনানো হলে গরু স্বাভাবিকের থেকে ৩ শতাংশ বেশি দুধ দেয়। কোন কোন মিউজিক শোনানো হলে গরু বেশি দুধ দেয়– তার তালিকাও তুলে দিয়েছিলেন তাঁরা। ওই দুই মনোবিদের দাবি– আরইএম ও সিমোনের ‘এভরিবডি হার্টস’– গরফানকেলের ‘ব্রিজ ওভার ট্রাবলড্ ওয়াটার’ শুনে গরুরা বেশি দুধ দিয়েছে। অন্যদিকে– ওয়াই টু’কে ইউরো ক্লাব ক্লাসিক্সের মুসা টি’র ‘হর্নি’ মিউজিক গরুদের শোনানো হলে আশানুযায়ী ফল মেলেনি। কী বুঝলেন? গোয়ালঘরে হয় মিউজিক ক্যাসেট নিয়ে যান– নয়তো শ্যামের মতো বাঁশি বাজানো রপ্ত করুন এখন থেকেই।   

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only