শনিবার, ৩১ আগস্ট, ২০১৯

বিয়েতে রাজি না হওয়ায় ছেলের বাড়ির সামনে ধরনা মেয়ের!

দেবশ্রী মজুমদার, বোলপুর, ৩১ অগাষ্ট: রেজিস্ট্রি করে বিয়ে হওয়ার এক বছর পর বেঁকে বসল পাত্র। মেয়ে পক্ষকে পরিস্কার জানিয়ে দেয়, বিয়ে করতে রাজি নন তিনি। বাধ্য হয়ে ছেলের বাড়ির সামনে ধরনায় বসেন ওই মহিলা। ঘটনাস্থলে পৌঁছে যায় শান্তিনিকেতন থানার পুলিশ।

জানা গেছে, বোলপুরের শান্তিনিকেতন থানার অন্তর্গত লায়েক বাজারের বাসিন্দা সেখ জামিরুলের সাথে নানুরের সাঁকুলির বাসিন্দা সায়েরা বিবির রেজিস্ট্রি করে বিয়ে হয়। তখন সেখ জামিরুল চাকরি পাননি বলে কনে পক্ষ পরিবারের তরফে জানা যায়। এতদিন পর বিয়ে করতে অস্বীকার করায় শনিবার ছেলের বাড়ির সামনে ধরনায় বসেন নানুর থানার সায়েরা বিবি। শান্তিনিকেতন থানার লায়েকবাজারের জামরুল সেখ ইয়েস ব্যাঙ্কে কর্মরত। আগে বাড়ি থেকে দেখাশোনা করে বিয়ে ঠিক হয়। ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা পণ হিসেবে মেয়ের বাবার কাছে গ্রহন করেন পাত্র। রেজিস্ট্রি বিয়ে করে পাত্র মেয়ের বাড়িতে জানান, বাড়ির কাজ শেষ হলে রীতি মেনে বিয়ে করে বাড়িতে তুলব। কিন্তু কিছুদিন পেরোতে না পেরোতে বেঁকে বসে জামরুল সাহেব জানান, বিয়ে করতে পারবেন না। টাকা ফেরত নিয়ে নিন। কিন্তু এত কিছু ঘটে যাওয়ার পর টাকা ফেরত নিতে রাজি হননি মেয়ের পরিবার। শনিবার সন্ধ্যায় ছেলের বাড়ির সামনে ধরনায় বসে পড়েন মেয়ে। শান্তিনিকেতন থানায় খবর পৌঁছালে পুলিশ এসে দুই পক্ষকে থানায় নিয়ে যান। প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, দুই পক্ষ থানায় প্রশাসনকে মৌখিক ভাবে তাঁদের অভিযোগ জানাচ্ছেন। খবর লেখার সময় পর্যন্ত কোন পক্ষই থানায় কোন অভিযোগ জানাননি। মেয়ের বাবা সালিম সেখ জানান, মেয়ে শান্তিতে শ্বশুর বাড়িতে ঘর সংসার করুক। এটা তিনি চান।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only