শনিবার, ২৪ আগস্ট, ২০১৯

ফের বিস্ফোরণ বীরভূমে! অভিযুক্ত বাড়ির মালিক পলাতক

কৌশিক সালুই, বীরভূম, ২৪ আগস্ট:-   ফের বিস্ফোরণ বীরভূমে। ভরদুপুরে উড়ে গেল একটি বাড়ি। পুলিশের ব্যাপক ধরপাকড়েও  যে এখন দুষ্কৃতীদের স্বর্গরাজ্য তা আবার প্রমাণিত। যদিও বিস্ফোরণে হতাহতের কোনো খবর নেই। অভিযুক্ত বাড়ির মালিক পলাতক। তার খোঁজে তল্লাশি শুরু করে ঘটনার তদন্ত  করছে পুলিশ।

বীরভূমের খয়রাশোলের কাকড়তলা থানার বঢ়ড়া গ্রাম। ঘড়ির কাটায় তখন বেলা দুটো। সেই সময় তুমুল বৃষ্টি বৃষ্টিপাত চলছে। প্রবল বিস্ফোরণে কেঁপে গেল চারিদিক। আগে থেকেই ওই বাড়িটি ঘিরে রেখেছিল পুলিশ। কারণ তাদের কাছে আগে থেকেই খবর ছিল ওই বাড়িটিতে বিপুল পরিমাণ বোমা ও বিস্ফোরক মজুদ আছে। পুলিশের আগমনের খবর পেয়ে আগে থেকেই গা ঢাকা দিয়েছিল বাড়ির মালিক ও পরিবার। বিস্ফোরণের ফলে ইটের পাকা দেওয়াল এবং আসবেষ্টস এর ছাদ দেওয়া বাড়িটি সম্পূর্ণ ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে। আর ওই বাড়ির মালিক হলেন এলাকার কুখ্যাত দুষ্কৃতী শেখ মহিবুল। তিনি আজফার ওরফে সেখ কালোর  গ্যাং এর সদস্য। সম্প্রতি সে সংশোধনাগার থেকে জামিনে মুক্তি পেয়েছিলেন। তার বিরুদ্ধে অভিযোগ ছিল খয়রাশোল তৃণমূল পার্টি অফিসে বিস্ফোরণ এবং তার নিজের গ্রাম বড়রা তে শেখ কালোর  বাড়িতে বোমাবাজি ও অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় সে যুক্ত।

বারবার কেন একই এলাকায় বিস্ফোরণ? ঝাড়খন্ড সীমান্ত লাগোয়া খয়রাশোল এলাকাটি বরাবরই দুষ্কৃতীদের স্বর্গরাজ্য। বেআইনি মাদক কারবার থেকে এলাকায় রাজনৈতিক ক্ষমতা দখল, এইসবই নিয়ন্ত্রণ করতে বোমা বারুদ বিস্ফোরক ও আগ্নেয়াস্ত্র মজুদ দুষ্কৃতীদের। সম্প্রতি পুলিশের পক্ষ থেকে জেলা জুড়ে ব্যাপক ধরপাকড় শুরু হয়। প্রচুর আগ্নেয়াস্ত্র ও বোমা উদ্ধার হয়। কিন্তু তাতেও দুষ্কৃতীদের বাড়বাড়ন্ত ঠেকানো যাচ্ছেনা খয়রাশোলের এলাকায়। এদিনের বিস্ফোরণের ঘটনা তারই প্রমাণ।
জেলা পুলিশ সুপার শ্যাম সিং বলেন, "বোমা ও বিস্ফোরক মজুদ আছে সেই খবর পেয়ে পুলিশ আগে থেকেই বাড়িটি ঘিরে রেখেছিল। তারমধ্যে বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। অভিযুক্ত পলাতক তার খোঁজে তল্লাশি এবং ঘটনা তদন্ত করা হচ্ছে"।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only