বৃহস্পতিবার, ২৯ আগস্ট, ২০১৯

ড্রাগ আসক্ত মেয়েকে চেন দিয়ে বেঁধে রেখেছেন মা


পাঞ্জাবে ড্রাগ আসক্তি ভয়াবহ একটি সমস্যা। রাজ্যটির সরকারও এর বিরুদ্ধে ব্যাপক প্রচারণা চালাচ্ছে। ‘উড়তা পাঞ্জাব’ নামে এ বিষয়ে একটি হিন্দি সিনেমাও বেশ কিছুদিন আগে মুক্তি পেয়েছে। কিন্তু ড্রাগের মারণনেশা থেকে মুক্তি খুঁজতে এখনও পথ হাতড়াচ্ছে রাজ্যটি। সম্প্রতি এমনই একটি ভয়াবহ ঘটনা সামনে এসেছে।অমূতসরের এক মহিলা তার মেয়েকে চেন দিয়ে বেঁধে রেখেছে। আপাত দূষ্টিতে এটিকে অমানবিক মনে হলেও এর পিছনের কারণ হল, মেয়েটি ড্রাগের প্রতি আসক্ত। ড্রাগ নেওয়া থেকে রুখতেই মেয়েকে চেন দিয়ে বেঁধে রাখতে হচ্ছে। ভদ্রমহিলা বেশ কয়েকবার সরকারের ডি-অ্যাডিকশান সেন্টারগুলির শরণাপন্ন হয়েছেন। কিন্তু তাতে কোনও কাজ হয়নি। গত মঙ্গলবার অমূতসরের সাংসদ ও কংগ্রেস নেতা গুরজিত সিং মহিলার বাড়িতে গিয়ে সাক্ষাৎ করেন। তিনি জানান, মেয়েটিকে সাহায্য করার জন্য তিনি সমস্ত রকম সাহায্য করতে প্রস্তুত।এটিকে অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা হিসেবে অভিহিত করে সাংসদ জানান, মেয়েটির চিকিৎসা যাতে বাড়িতেই করা যায়, তার জন্য আমি ডাক্তারদের নির্দেশ দিয়েছি। 

অন্যদিকে ড্রাগাসক্ত মেয়েটির মা জানাচ্ছেন, আমি আমার মেয়েকে এর আগে তিনবার সরকার পরিচালিত ডি-অ্যাডিকশান সেন্টারে ভর্তি করিয়েছি। ওরা চার-পাঁচ দিন রেখেই ওকে ছেড়ে দিত। একজন ড্রাগাসক্ত কীভাবে চার-পাঁচ দিনে সুস্থ হয়ে যাবে?আমি ডাক্তারদের অনুরোধও জানিয়েছিলেম যাতে ওকে সুস্থ হওয়া পর্যন্ত হাসপাতালে রাখা হয়। কিন্তু এতে কেউ কর্ণপাত করেননি। 
পাঞ্জাবের একটি উল্লেখযোগ্য সংখ্যক মহিলা ড্রাগে আসক্ত। তবে মেয়েদের জন্য ডি অ্যাডিকশান সেন্টার একটিই। মুখ্যমন্ত্রী অমরিন্দর সিং দাবি করেছেন, রাজ্য সরকার দ্রুত ড্রাগ সমস্যার প্রতিকার করতে নানা পদক্ষেপ নিচ্ছে। ২৮,০০০ ড্রাগ ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে তাঁর দাবি। 

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only