শুক্রবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৯

জাগুয়ার কান্ডে ভাই-মামার জামিন হলেও দাদার পুলিশি হেফাজত

পারিজাত মোল্লা:- বহু চর্চিত কলকাতা রাজপথে নির্মম সড়ক দুর্ঘটনা হিসাবে ইতিমধ্যেই শেক্সপিয়ার সরণির জাগুয়ার কান্ডে কুখ্যাতি মিলেছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে কলকাতার ব্যাংকশাল আদালতে চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেটের এজলাসে পেশ করা হয় জাগুয়ার মামলায় তিন অভিযুক্ত কে।বিচারক আরসালান পারভেজ এবং মহম্মদ হামজা কে শর্তসাপেক্ষে জামিন মঞ্জুর করেন। পাঁচ হাজার টাকার ব্যক্তিগত বন্ডে, পাসপোর্ট জমা রাখার পাশাপাশি তদন্তকারী পুলিশ অফিসারের কাছে সাপ্তাহিক হাজিরার শর্তগুলি রয়েছে। তবে পুলিশি তদন্তে প্রকাশ হওয়া জাগুয়ার গাড়ীর 'আসল' চালক রাগীব পারভেজের ১২ দিনের পুলিশি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছেন বিচারক. ব্যাংকশাল আদালত চত্বরে আরসালান গ্রুপের রেস্তোরাঁ কর্মীরা মালিকপক্ষ এর সমর্থনে স্লোগান তুলেন। পুলিশ অবশ্য তা দীর্ঘস্থায়ী করতে দেয়নি । প্রথম পর্যায়ে বিখ্যাত রেস্তোরাঁ আরসালান গ্রুপের মালিকের ছেলে আরসালান পারভেজ এবং মালিকের শালা মহম্মদ হামজা কে শেক্সপিয়ার সরণির পুলিশ গ্রেপ্তার করে। গত সপ্তাহে কলকাতার শেক্সপিয়ার সরণি এলাকায় গভীর রাতে ফুটপাতে থাকা দুই বাংলাদেশী কে পিষে দেয় আরসালান গ্রুপের রেস্তোরাঁ মালিক এর ছেলে। প্রথমে মনে করা হচ্ছিল আরসালান পারভেজ একাই মদ্যপ অবস্থায় এই নারকীয় সড়ক দুর্ঘটনাটি ঘটিয়েছে। তবে ধৃত আরসালান পারভেজের কোন আঘাত বিশেষত মুখমন্ডলে না থাকায় খটকা লাগে এই মামলার তদন্তকারীদের। ফরেন্সিক তদন্ত, মোবাইল ফোন ডিটেল পরীক্ষা করে জানতে পারে গাড়িটির আসল চালক ধৃতের দাদা রাগীব পারভেজ। এই তথ্য উঠে আসতেই মহম্মদ হামজা তার অভিযুক্ত ভাগ্নে  কে দুবাই পাঠিয়ে দেয়। অভিযুক্ত কে মদতদানের জন্য পুলিশ মহম্মদ হামজাকেও ধরে। গত বুধবার দুপুরে কলকাতার বেনিয়াপুকুরে এক বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাগীব পারভেজকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আজ ব্যাংকশাল আদালতে চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট এর এজলাসে তিনজন কে পেশ করা হলে, বিচারক আরসালান পারভেজ এবং মহম্মদ হামজা কে শর্তসাপেক্ষে জামিন মঞ্জুর করেন এবং মূল অভিযুক্ত রাগীব পারভেজ কে ১২ দিনের পুলিশি হেফাজতে নেওয়ার নির্দেশ দেন।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only