রবিবার, ২৫ আগস্ট, ২০১৯

বাহরাইনেও সম্মানে ভূষিত হলেন মোদি

আরব আমিরশাহীতে সর্বোচ্চ সম্মানে ভূষিত হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে বাহরাইনের বাদশাহ হামাদ বিন ইশা আল খলিফা সেদেশের প্রথম শ্রেণির সম্মান প্রদান করলেন। শনিবার সন্ধ্যায় বাদশাহর প্যালেসে বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে নরেন্দ্র মোদিকে এই সম্মান প্রদান করা হয়। ‘কিং হামাদ অর্ডার অফ দ্য রেনেসাঁ’ পদক দেওয়া হয় মোদিকে। নবজাগরণের অগ্রদূত হিসেবে সম্মান জানানো হয় ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে। নরেন্দ্র মোদি তিন দিনের বিদেশ সফরে শনিবার বাহরাইন পৌঁছেছেন। প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর ডেলিগেশনের সম্মানে রাজকীয় নৈশভোজের আয়োজন হয়।
বাদশাহ খলিফা সম্মানজ্ঞাপন অনুষ্ঠানে বলেন, ভারতের সঙ্গে বাহরাইনের সম্পর্ক বহু পুরানো। বাহরাইনে একটি প্রাচীন হিন্দু মন্দিরও রয়েছে। আল্লাহর নাম নিয়ে তিনি শুরু করেন নরেন্দ্র মোদির প্রশংসা। ভারতের সঙ্গে আর্থিক– সামরিক সহ বিভিন্ন দ্বিপাক্ষিক চুক্তির প্রসঙ্গ উল্লেখ করে বলেন, দুই দেশ উন্নয়নে অংশীদার। বাদশাহ বলেন, শান্তিপূর্ণ সহাবস্থানে বিশ্বাসী আমরা। বাহরাইনে ভারতীয়রা শান্তি ও সম্প্রীতির পরিবেশে রয়েছেন। তাঁরা বাহরাইনের উন্নয়নে অবদান রেখেছেন। পারস্পরিক সহযোগিতার মধ্য দিয়ে এগিয়ে যাওয়ার সংকল্প ঘোষণা করেন বাদশাহ খলিফা।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও এই সম্মান গ্রহণের পর বলেন, ভারতের ১৩০ কোটি মানুষ এই সম্মানে গর্বিত হলেন। এই সম্মান বন্ধুত্বের লক্ষণ। দুই দেশের মধ্যে মধুর সম্পর্ক আরও বাড়বে বলে আমি আশা করছি। ভারতের উন্নয়নে বাহরাইনও অংশীদার থাকুক।
উল্লেখ্য, বাহরাইনে বাইরে থেকে কাজে আসা মানুষদের মধ্যে ভারতীয়দের সংখ্যা সর্বাধিক। এখানে দুশো বছর আগের একটি কৃষ্ণ মন্দির রয়েছে। নরেন্দ্র মোদি ঘোষণা দিয়েছেন মানামার শ্রীনাথজির মন্দিরে সৌন্দর্যায়নে অর্থ বরাদ্দ করবে। ৪২ লক্ষ ডলার দেওয়ার ঘোষণা করেন মন্দিরে পুজারিদের সঙ্গে সাক্ষাৎ করার সময়। ৩০ মিটার উচ্চতার ৪৫০০০ বর্গফুট এই মন্দির হতে চলেছে বাহরাইনের দ্রষ্টব্য স্থানগুলির মধ্যে একটি। এই প্রথম ভারতের কোনও প্রধানমন্ত্রী এখানে এলেন।

শনিবারও বেশ কয়েকটি মউ সাক্ষরিত হয় দুই দেশের মধ্যে। আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে শান্তি ও সুরক্ষা বিষয়ে দুই দেশের মধ্যে আলোচনা হয়।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only