সোমবার, ২৬ আগস্ট, ২০১৯

রেল ও হাতির সংঘর্ষ রুখতে এক অভিনব উদ্যোগ!

রেল ও হাতির সংঘর্ষ রুখতে এক অভিনব উদ্যোগ নিল বন দপ্তর। হাতিদের ডাকের মাধ্যমে তাদের অবস্থান নির্ধারণ করতে সেন্সর ভিত্তিক প্রযুক্তি তৈরীর সম্ভাবনা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

এইরকম উদ্যোগ দেশে এই প্রথম। হাতিরা যখন উচ্চ কম্পাঙ্কে ডাকে তখন সেটা দূর থেকেই শোনা যায় কিন্তু কিছু সময়ে হাতিরা যখন নিম্ন কম্পাঙ্কে ডাকে তখন দূর থেকে তা শোনা যায় না। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স ব্যবহার করে সেই শব্দ শুনে নির্দিষ্ট গণ্ডীতে তাদের অবস্থান চিহ্নিত করা সম্ভব হবে।
বন দপ্তর কম খরচের প্রযুক্তি খুঁজতে চেষ্টা করছে যাতে করে ট্রেনের ধাক্কায় হাতির মৃত্যু আটকানো যায়। গত বছর নভেম্বর মাসে বনাঞ্চল ও বন্যপ্রাণী নিয়ে চালসায় দুদিনের কর্মশালা হয়। সেখানে সারা দেশের বিজ্ঞানী ও বিশেষজ্ঞরা যান।

গরুমারা ও মহানন্দা জাতীয় উদ্যানের কিছু অঞ্চলে এই প্রযুক্তি পরীক্ষা করে দেখা হবে যেখানে রেলপথ আছে এবং মানুষ ও হাতির সংঘাত হয়। এর মাধ্যমে আলট্রা সাউন্ড কম্পাঙ্কের প্রযুক্তির ব্যবহার করা যাবে।
শিলিগুড়ি ও আলিপুরদুয়ারের মধ্যে প্রায় ১৬৫ কিলোমিটার রেললাইন বিভিন্ন জঙ্গলের মধ্যে দিয়ে গেছে। এই জঙ্গলের মধ্যে আছে মহানন্দা ওয়াইল্ডলাইফ স্যাংচুয়ারি , জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান এবং বক্সা টাইগার রিজার্ভ।
এই প্রযুক্তি সফল হলে ট্রেনচালকদের হাতিদের সঠিক অবস্থান সম্বন্ধে এসএমএস করে জানিয়ে দেওয়া হবে। এর ফলে সফল ভাবে ট্রেন ও হাতির সংঘাত রোখা সম্ভব হবে।

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

ভিন্ন স্বাদের খবর

...
আপনার ক্যাটাগরি নির্বাচন করুন

Whatsapp Button works on Mobile Device only